রিয়ালের টানা দ্বিতীয় জয় রোনালদোর জোড়া গোলে

43

লা লিগায় দুই ম্যাচে গোল না পাওয়া ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ফিরেই জ¦লে উঠলেন। পর্তুগিজ ফরোয়ার্ডের জোড়া গোল ও আক্রমণভাগের সঙ্গী গ্যারেথ বেলের লক্ষ্যভেদে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের মাঠে প্রথম জয় পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ।
মঙ্গলবার রাতে সিগনাল-ইদুনা-পার্কে ‘এইচ’ গ্রুপের ম্যাচটি ৩-১ গোলে জিতেছে জিনেদিন জিদানের দল। বেল এগিয়ে দেওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে গোল দুটি করেন রোনালদো। স্বাগতিকদের একমাত্র গোলটি করেন পিয়েরে এমেরিক আউবামেয়াং। এর আগে কখনই জার্মান ক্লাবটির মাঠে জিততে পারেনি রিয়াল।
শিরোপা ধরে রাখার অভিযানে রিয়ালের এটা টানা দ্বিতীয় জয়। গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে আপোয়েল নিকোশিয়াকে ৩-০ গোলে হারিয়েছিল তারা।
অন্যদিকে এবারের আসরে ডর্টমুন্ডের এটা টানা দ্বিতীয় হার। প্রথম ম্যাচে টটেনহ্যাম হটস্পারের মাঠে একই ব্যবধানে হেরেছিল জার্মান দলটি।
ম্যাচের দশম মিনিটে প্রথম ভালো সুযোগটা এসেছিল রিয়ালের। বল নিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন দানি কারভাহাল। বাঁয়ে তার চেয়ে ভালো জায়গায় ছিলেন রোনালদো ও বেল। কিন্তু পাস না দিয়ে এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে গোলরক্ষক বরাবর শট নেন স্প্যানিশ এই ডিফেন্ডার।
চতুর্দশ মিনিটে জার্মান ফরোয়ার্ড মাক্সিমিলিয়ান ফিলিপের ভলি গোলরক্ষক কেইলর নাভাস ঠিকমতো ফেরাতে ব্যর্থ হলে গোলমুখে সের্হিও রামোসের হাতে লাগে। পেনাল্টির জোরালো আবেদন উঠলেও রেফারি সাড়া দেননি।
চার মিনিট পর কারভাহালের বাড়ানো বলে চমৎকার এক ভলিতে দলকে এগিয়ে দেন ওয়েলসের ফরোয়ার্ড বেল।
বিরতির আগের পাঁচ মিনিটে পাওয়া সুযোগগুলো থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করা উচিত ছিল রিয়ালের। দুবার ডি-বক্সে মধ্যে বল পেয়েছিলেন রোনালদো। প্রথমবার এক ডিফেন্ডারের গায়ে বল মারার পর পরেরবার লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন। আর কর্নার থেকে অনেকটা অরক্ষিত অবস্থায় থাকা রামোস হেডও লক্ষ্যে থাকেনি।
দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম মিনিটে বাঁয়ে আউবামেংয়ারে উদ্দেশে হেড করেছিলেন ইউক্রেনের ফরোয়ার্ড আদ্রি ইয়ারমোলেঙ্কা। শেষ মুহূর্তে ক্রসবারের উপর দিয়ে বল পাঠিয়ে বিপদমুক্ত করেন রাফায়েল ভারানে।
তিন মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রোনালদো। বাঁ থেকে বেলের নিচু ক্রস পেয়ে ডি-বক্সের মধ্যে থেকে বাঁ পায়ের শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় দেড়শতম ম্যাচ খেলতে নামা পর্তুগিজ এই ফরোয়ার্ড।
৫৪তম মিনিটে ব্যবধান কমান দারুণ ছন্দে থাকা আউবামেয়াং। বাঁ দিক থেকে জার্মান মিডফিল্ডার গনজালো কাস্ট্রোর ক্রসে ডান পা বাড়িয়ে বল জালে পাঠান এবারের বুন্ডেসলিগায় এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ আটটি গোল করা গ্যাবনের এই ফরোয়ার্ড।
৭৯তম মিনিটে লুকা মদ্রিচের বাড়ানো বল ডি-বক্সে ধরেই কোনাকুনি শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করে জয় নিশ্চিত করেন রোনালদো।
এবারের আসরে রোনালদোর গোল হলো চারটি। আপোয়েলের বিপক্ষেও জোড়া গোল করেছিলেন তিনি। ইউরোপ সেরা প্রতিযোগিতায় সর্বোচ্চ গোলদাতার মোট গোল ১০৯টি।
‘এইচ’ গ্রুপের অন্য ম্যাচে হ্যারি কেইনের হ্যাটট্রিকে সাইপ্রাসের দল আপোয়েল নিকোশিয়াকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে টটেনহ্যাম হটস্পার।
টানা দ্বিতীয় ম্যাচে হোঁচট খেয়েছে লিভারপুল। ‘ই’ গ্রুপে রাশিয়ার স্পার্তাক মস্কোর মাঠ থেকে ১-১ গোলে ড্র করে ফিরেছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবটি। প্রথম ম্যাচে ঘরের মাঠে সেভিয়ার সঙ্গে ২-২ ড্র করেছিল ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।
গ্রুপের অন্য ম্যাচে নিজেদের মাঠে মারিবোরকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে স্পেনের সেভিয়া।
‘এফ’ গ্রুপে টানা দ্বিতীয় জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। ইউক্রেনের শাখতার দোনেৎস্কেকে ২-০ গোলে হারিয়েছে পেপ গুয়ার্দিওলার দল। প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের ক্লাব ফেইনুর্ডকে ৪-০ ব্যবধানে হারিয়েছিল প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবটি।
অন্য ম্যাচে ফেইনুর্ডকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে সেরি আর পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা নাপোলি।
‘জি’ গ্রুপে জয়ের ধারায় আছে বেসিকতাস। জার্মানির লাইপজিগকে ২-০ গোলে হারিয়েছে তুরস্কের ক্লাবটি। প্রথম ম্যাচে তারা ৩-১ গোলে পোর্তোকে হারিয়েছিল।
এই গ্রুপের অন্য ম্যাচে ফ্রান্সের মোনাকোকে ৩-০ ব্যবধানে হারিয়েছে সাবেক চ্যাম্পিয়ন পর্তুগালের দল পোর্তো।