রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় খালেদাকে আদালতে হাজিরের নির্দেশ

59

khaledaমুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে মন্তব্যের জন্য দায়ের করা রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি দ্বিতীয় দফা পিছিয়েছে। আসামিপক্ষের সময়ের আবেদনে সাড়া দিয়ে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লা মঙ্গলবার ১ ডিসেম্বর নতুন তারিখ রেখে ওইদিন খালেদাকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। মামলার বাদী সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী বলেন, আজ (গতকাল মঙ্গলবার) অভিযোগ গঠনের জন্য দিন ছিল। আসামির উপস্থিতি ছাড়া তা সম্ভব নয় আসামিপক্ষ সময় চাইলে আদালত আগামী ১ ডিসেম্বর দ্বিতীয় বারের মত সময় বেঁধে দিয়েছেন। খালেদার বিরুদ্ধে দারুস সালাম থানার নাশকতার পাঁচ মামলার পরবর্তী তারিখও ওইদিন রাখা হয়েছে বলে জানান তিনি। গত ২১ ডিসেম্বর রাজধানীর রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের এক আলোচনা সভায় খালেদা মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে বলেন, আজকে বলা হয় এত লক্ষ লোক শহীদ হয়েছেন। এটা নিয়েও অনেক বিতর্ক আছে যে আসলে কত লক্ষ লোক মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হয়েছেন। নানা বই কিতাবে নানা রকম তথ্য আছে। ওই বক্তব্যে ‘দেশদ্রোহী’ মনোভাবের পরিচয় রয়েছে অভিযোগ করে গত ২৫ জানুয়ারি ঢাকার হাকিম আদালতে এ মামলা করেন মমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী। মহানগর হাকিম রাশেদ তালুকদার ওইদিনই মামলা আমলে নিয়ে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে সমন জারি করেন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদাকে ৩ মার্চ আদালতে হাজির হয়ে অভিযোগের বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়। হাকিম আদালতে এ মামলায় জামিন পাওয়া খালেদা গত ১০ অগাস্ট জজ আদালতে হাজির হয়ে জামিন চাইলে বিচারক তা মঞ্জুর করেন। পুলিশের দেওয়া অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে বিচারক কামরুল হোসেন মোল্লা সেদিন অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য ১০ অক্টোবর দিন ঠিক করে দিয়েছিলেন। কিন্তু ‘শুনানির জন্য জন্য প্রস্তুতি’ না থাকার কারণে দেখিয়ে আসামিপক্ষ সময়ের অবেদন করলে বিচারক ৮ নভেম্বর নতুন তারিখ দিয়েছিলেন।