রাশিয়ায় বেস্ট অব নেশন অ্যাওয়ার্ড অর্জন বাংলাদেশী আঁচলের

17

বাংলাদেশী প্রতিযোগী নাফিসা সাদাফ আঁচল রাশিয়ার কাজানে সমাপ্ত বিশ্ব দক্ষতা প্রতিযোগিতায় বেস্ট অব নেশন অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছে। দুই প্রতিযোগী তানজিম তাবাস্সুম ইসলাম কনফেকশনারি ও পেটিসেরিতে এবং নাফিসা সাদাফ আঁচল ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ে বিশ্বের ৬৩টি দেশের প্রতিযোগীদের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে আন্তর্জাতিক দক্ষতামান নির্বাচকদের প্রশংসা কুড়িয়ে বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের দক্ষতার মানকে সমাদৃত করেছে। গত মঙ্গলবার এ প্রতিযোগিতা শেষ হয়।
বাংলাদেশ থেকে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব মো. নজিবুর রহমানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল প্রতিযোগীদের উৎসাহ ও প্রয়োজনীয় সহায়তা দেয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন সেমিনার ও আলোচনায় দক্ষতা উন্নয়নে বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত কর্মকা- তুলে ধরে বিশ্ব কর্মবাজারে দেশের শ্রমশক্তির সক্ষমতা সম্পর্কে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ধারণা দেন।
প্রতিনিধিদলের সদস্য জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (এনএসডিএ) নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেনের বরাত দিয়ে এনএসডিএ কার্যালয় থেকে এসব কথা জানানো হয়। প্রতিনিধিদলে অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন, এনএসডিএ’র সদস্য রেজাউল করিম, পাঁচটি শিল্প দক্ষতা পরিষদের (আইএসসি) চেয়ারম্যান এগ্রো-ফুডের শফিকুর রহমান ভূইয়া, ট্যুরিজম ও হসপিটালিটির একেএম বারী, আইসিটির শাফকাত হায়দার, আরএমজি ও টেক্সটাইলসের মোহাম্মদ নাসির এবং ইনফরমাল সেক্টরের মির্জা নুরুল গনি শোভন।
প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব মো. নজিবুর রহমান বলেন, বাংলাদেশের দুজন প্রতিযোগীর রাশিয়ার কাজানে বিশ্ব দক্ষতা প্রতিযোগিতায় প্রথমবারের মতো অংশ নেয়া একটি ঐতিহাসিক ঘটনা। তিনি বলেন, এনএসডিএ গঠনের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশে দক্ষতা উন্নয়নের যে যাত্রা শুরু হয়েছে তাকে বেগবান করতে রাশিয়ার কাজানে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী বিশেষ তাগিদ দেন। এটি দেশের জনগোষ্ঠীকে দক্ষ জনসম্পদে রূপান্তরের মাধ্যমে বিশাল যুবগোষ্ঠীর জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক ইচ্ছার প্রতিফলন। কাজানে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ বাংলাদেশের জন্য সম্ভাবনার নতুন দিগন্ত উন্মোচন করেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, এর মাধ্যমে আগামী ২০২১-এ চীন, ২০২৩-এ ফ্রান্সে বিশ্ব দক্ষতা এবং ২০২০-এ আবুধাবিতে বিশ্ব দক্ষতা এশিয়া প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার মধ্যদিয়ে জাতীয় পর্যায়ে দক্ষতার মান আরো এগিয়ে নেয়ার এবং আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় সাফল্য অর্জন ও বিশ্ব শ্রমবাজারের সুযোগ কাজে লাগাতে পারবে।
সারা বিশ্বের মোট ১ হাজার ৩৫৪ জন প্রতিযোগী ৫৬টি দক্ষতা বিষয়ে পাঁচ দিনব্যাপী বিশ্ব দক্ষতা প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। খবর বাসস।