রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের আয়োজনে ফেব্রুয়ারিতে বসছে জাতীয় ক্রীড়ার বর্ণাঢ্য আসর

11

‘খেলাধুলায় স্মার্ট দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ’ এই স্লোগানে রাজশাহীতে আগামী ৭-১২ ফেব্রুয়ারি ৫২তম জাতীয় শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার বর্ণাঢ্য আয়োজন করেছে রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড। প্রতিযোগিতা সফল করতে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। তারই অংশ হিসেবে  শনিবার এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও সাংগঠনিক কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড.অলিউল আলমের সভাপতিত্বে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।
বর্ণাঢ্য এই ক্রীড়া আসরে সারাদেশের স্কুল, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন ইভেন্টের খেলোয়াড়রা যোগ দিবেন। সেই সাথে ক্রীড়া অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের নেতৃত্বে রাজশাহী আসবেন ৭০ জনের একটি প্রতিনিধি দল। দেশের ১১টি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। রাজশাহী বিভাগের ৮ জেলার জেলা শিক্ষা অফিসার এবং ক্রীড়া কর্মকর্তগণও এই ক্রীড়াযজ্ঞে অংশ নিবেন।
রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক ও সাংগঠনিক কমিটির সদস্য সচিব মহা. জিয়াউল হক জানান, পুরো ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সুষ্ঠু ও সফল করতে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড ইতোমধ্যেই ২০টি উপকমিটি গঠন করেছে। ক্রীড়াযজ্ঞের সূচনাপর্ব ১১ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে গেছে। প্রতিষ্ঠান পর্যায়ের প্রতিযোগিতা ১৩ জানুয়ারি শেষ হয়েছে। উপজেলা পর্যায়ের প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে জাতীয় পর্যায়ে প্রতিযোগিতা শেষ হবে আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এ প্রতিযোগিতার সূচি এরই মধ্যে প্রকাশ করা হয়েছে।
জিয়াউল হক আরো জানান, উপজেলা পর্যায়ের প্রতিযোগিতা আগামী ১৫ থেকে ২১ জানুয়ারি পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। এরপর ২৩ থেকে ২৭ জানুয়ারি পর্যন্ত জেলা পর্যায়ে, ২৯ থেকে ১ ফেব্রুয়ারি উপঅঞ্চল পর্যায়ের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। আর ৩ থেকে ৫ ফেব্রুয়ারি অঞ্চল পর্যায়ের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে এবং আগামী ৭ থেকে ১২ ফেব্রুয়ারি জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতা রাজশাহীতে অনুষ্ঠিত হবে।
রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৫২তম শীতকালীন এই খেলার আসর বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠিত হবে। খেলা অনুষ্ঠানের সঙ্গে রাজশাহীর ঐতিহ্যও তুলে ধরা হবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে বলে তিনি জানান।
জিয়াউল হক আরো বলেন, ‘প্রতি বছরই আমরা গ্রীষ্মকালীন ও শীতকালীন দুটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকি। দেশের স্কুল ও মাদ্রাসাগুলো থেকে বেশ ভালো সাড়া পেয়েছি আমরা। সেই লক্ষে ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে জাতীয় পর্যায়ে রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের ব্যবস্থাপনায় সরকারি শারীরিক শিক্ষা কলেজ মাঠে শুরু হতে যাচ্ছে শীতকালীন জাতীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। ৬ দিনব্যাপী এই প্রতিযোগিতা শেষ হবে ১২ ফেব্রুয়ারি। ছাত্র ও ছাত্রীদের জন্য আলাদা ইভেন্টে অ্যাথলেটিকস, দৌড়, বর্শা নিক্ষেপ, দীর্ঘ লাফ, চাকতি নিক্ষেপ, গোলক নিক্ষেপ, দড়িলাফ ইভেন্টসহ, হকি, ক্রিকেট, বাস্কেটবল, ভলিবল, ব্যাডমিন্টন একক ও দ্বৈত, সাইক্লিং ইভেন্টে অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় ক্রীড়ার এই মহাযজ্ঞ। এই ৮টি ডিসিপ্লিনে ৮ শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিবেন।’ তিনি আরো জানান, সাংগঠনিক কমিটি রাজশাহী সরকারি শারীরিক শিক্ষা কলেজ মাঠ এবং আবাসন অবকাঠামো পরিদর্শন করেছেন। সে মোতাবেক জাতীয় পর্যায়ের খেলোয়াড়দের আবাসন নিশ্চিত করা হয়েছে।
জিয়াউল হক বলেনÑ শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতাকে চারটি অঞ্চলে ভাগ করা হয়েছে চারটি ফুলের নামে। এগুলো হলোÑ রাজশাহী ও দিনাজপুর ‘চাঁপা’ অঞ্চল, ঢাকা ও ময়মনসিংহ ‘পদ্ম’ অঞ্চল, খুলনা ও বরিশাল ‘বকুল’ অঞ্চল এবং চট্টগ্রাম ও সিলেট ‘গোলাপ’ অঞ্চল।