রাজধানী দখলে নিলেও হামলায় নিহত দুই শতাধিক তালেবান

15

আফগানিস্তানের আরেকটি প্রাদেশিক রাজধানী দখলে নিলেও সরকারি বাহিনীর হামলায় নিহত হয়েছে দুই শতাধিক তালেবান। মার্কিন সেনা প্রত্যাহার শুরুর পর থেকেই তালেবানের আগ্রাসন দমাতে পারছে না আফগান সেনারা। একের পর এক শহর দখলে নিতে শুরু করেছে তালেবান। নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে লড়ছে আফগান সেনারা। শনিবার আফগান সেনাদের হটিয়ে দেশটির পূর্বাঞ্চলে জাওজান প্রদেশের রাজধানী শেবারঘান দখলে নেয় তালেবান। এর আগে নিমোরাজ প্রদেশের রাজধানী জারাঞ্জও দখলে নেয় তারা।

দখলের পর কারাগারে থাকা বন্দিদের মুক্তিও দেয়া হয়েছে। প্রমাণ দিতে না পারলেও শেবারঘানে আফগান সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে দুইশ’র বেশি তালেবান সদস্য নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণণালয়। অন্যদিকে, কাবুলে গাড়ি বোমা হামলায় আফগান বিমানবাহিনীর পাইলট হামিদুল্লাহ আজিমি নিহত হয়েছেন। হামলার দায় স্বীকার করেছেন তালেবানের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ। একের পর এক শীর্ষ কর্মকর্তার মৃত্যুর প্রতিক্রিয়ায় তালেবানদের মেরুদ- ভেঙে দেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি।

তিনি বলেন, শত চেষ্টাতেও আফগানিস্তানের ইতিহাস মুছে ফেলতে পারবে না তালেবানরা। আমাদের সম্মান ছিনিয়ে নিতে দেব না তাদেরকে। তারা যা করছে তা মানবিকতার পরিপন্থি। আমরা মানবতা, জীবন ও সম্মানের পক্ষে আছি। চমন শহরে পাকিস্তান সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে তালেবান। আফগানদের জন্য পাকিস্তানের ভিসা শিথিল না করা পর্যন্ত সীমান্তটি বন্ধ রাখা হবে বলে জানানো হয়েছে। পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় ব্রিটিশ নাগরিকদের দ্রুত আফগানিস্তান ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।