রমজান মাসে ব্যবসায়ীদের সততার পরিচয় দিতে হবে : বাণিজ্যমন্ত্রী

4

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ভোক্তাদের সচেতনতা বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন। তিনি বলেন, ‘ভোক্তাকে সচেতন হতে হবে, তা হলে ব্যবসায়ীরা অনৈতিক সুযোগ নিতে পারবেন না। অনিয়মের বিরুদ্ধে ভোক্তা সাধারণ সচেতন হলে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ওপর চাপ অনেক কমে আসবে।’
মন্ত্রী বলেন, পবিত্র রমজান মাসকে সামনে রেখে ভোক্তা সাধারণ এক মাসের পণ্য এক সাথে না কিনে কম পরিমাণে একাধিকবার ক্রয় করলে আলাদা করে পণ্যের চাহিদা বাড়বে না। ব্যবসায়ীরাও সুযোগ নিতে পারবেন না। পবিত্র রমজান মাসে ভোক্তা সাধারণকেও সংযমী হতে হবে এবং ব্যবসায়ীদেরও সততার পরিচয় দিতে হবে, ব্যবসার পাশাপাশি তাদের সামাজিক দায়িত্বও পালন করতে হবে।
টিপু মুনশি বুধবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরস্থ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর আয়োজিত ‘বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস-২০২৩’ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, দেশে চাহিদার তুলনায় অনেক বেশি পণ্য মজুত রয়েছে, সরবরাহও স্বাভাবিক রয়েছে, কোনো পণ্যের ঘাটতি হবে না। যে কোনো অপপ্রচার থেকে সতর্ক থাকতে হবে। যৌক্তিক মূল্য নিশ্চিত করতে সরকার দেশব্যাপী ব্যাপক কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। তিনি বলেন, ভোক্তার অধিকার রক্ষায় ভোক্তা সাধারণকে সম্পৃক্ত করা একান্ত দরকার। শুধু অভিযান পরিচালনার মাধ্য্যমে জরিমানা বা মামলা করে সাময়িক ব্যবস্থা নেয়া হলেও স্থায়ী সমাধান পাওয়া যাবে না। এজন্য ভোক্তাকে এ ধরনের অনিয়মের বিরুদ্ধে সচেতন থাকতে হবে।
টিপু মুনশি জানান, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের জনবলের সীমাবদ্ধতা আছে, তারপরও শহর থেকে মাঠপর্যায়ে স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে, মানুষ এর সুফল পাচ্ছে। এ কাজে ভোক্তা সম্পৃক্ত হলে কাজটি অনেকটা সহজ হবে।
ভোক্তাকে সচেতন করেতে প্রচার মাধ্যমের গুরুত্ব অনেকÑ এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, সম্মিলিতভাবে সবাই কাজ করলে ভোক্তার অধিকার প্রতিষ্ঠিত হতে বেশি সময় প্রয়োজন হবে না।
অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কনজ্যুমারস কমপ্লেইন ম্যানেজমেন্ট সিসটেম (সিসিএমএস) সফটওয়্যার উদ্বোধন করেন। পরে, বাণিজ্যমন্ত্রী ‘ভোক্তা বাতায়ন-২০২৩’ শীর্ষক স্মরণিকার মোড়ক উন্মোচন করেন।
বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবসের এ বছরের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘নিরাপদ জ্বালানি, ভোক্তাবান্ধব পৃথিবী’। বর্তমান প্রেক্ষাপটে এটি সময়োপযোগী হয়েছে বলেও তিনি মনে করেন।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম শফিকুজ্জামান, এফবিসিসিআই’র ভারপ্রাাপ্ত সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু এবং কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ’র (ক্যাব) সভাপতি গোলাম রহমান বক্তৃতা করেন।