যেভাবে ‘গাঙ্গুবাঈ’ হয়ে উঠেছিলেন আলিয়া

7

বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাট অভিনীত ‘গাঙ্গুবাঈ কাথিয়াওয়াড়ি’ ছবি নিয়ে দর্শকের আগ্রহের সীমা নেই। এরইমধ্যে প্রকাশ্যে এসেছে ছবিটির ট্রেলার। সেখানে আলিয়াকে দেখেই প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন পরিবার থেকে শুরু করে ইন্ডাস্ট্রির বন্ধু ও শুভাকাঙ্খীরা। ছবির ট্রেলার নিয়ে আলিয়ার প্রশংসা করতে ভোলেননি দীপিকা-ক্যাটরিনারার মতো অভিনেত্রীরাও। আলিয়া অভিনীত চরিত্র নিয়ে এবার মুখ খুললেন ছবির পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালি। ‘গাঙ্গুবাঈ’-এর চরিত্রে যেভাবে নিজেকে ফুটিয়ে তুলেছেন আলিয়া, সেই ব্যাপারে অকুন্ঠ প্রশংসা করেছেন বানসালি।

নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত ম্যাগাজিন ‘ভ্যারাইটি’-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পরিচালক বানসালি বলেন, এক প্রতিষ্ঠিত, উচ্চবিত্ত ঘরের সন্তান আলিয়া। তার জীবন-যাপন বরাবরই আর পাঁচজন সাধারণ মধ্যবিত্তদের তুলনায় অনেকটাই আলাদা। সেই মানুষের কাছে গঙ্গুবাঈ চরিত্রটি স্বাভাবিকভাবেই তার পৃথিবীর বিপরীত মেরুর এক বাসিন্দা। তাই আমরা চেষ্টা করেছিলাম, এই চরিত্রে অভিনয় করাকালীন আলিয়া যেন সামান্য নীচু গলায় কথা বলে কারণ এমনিতে একটু বেশ জোরেই কথা বলে সে। এ ছাড়া আলিয়ার চাউনি কেমন হবে তা নিয়েও বিস্তর আলোচনা চলেছিল। চেষ্টা করেছি গঙ্গুবাঈয়ের ব্যক্তিত্ব যেন তার চাউনির মাধ্যমেই প্রকাশ পায়’।

বানসালি জানান, আলিয়া খুব তাড়াতাড়িই ওই চরিত্রের মধ্যে ঢুকে পড়েন যা দেখে তিনি বেশ অবাক হন। শুধু তাই নয়, বানসালি যেভাবে বলেছেন আলিয়া ঠিক অক্ষরে অক্ষরে দ্রুততার সঙ্গে সব মেনে নিয়েছেন।’ এস হুসেন জাইদির লেখা বই ‘মাফিয়া কুইনস অফ মুম্বই’ থেকে জানা যায়,ষাটের দশকে গোটা কামাঠিপুরার কর্ত্রী ছিলেন গঙ্গুবাঈ কাথিয়াওয়াড়ি। খুব অল্প বয়সে জোড় করে যৌনবৃত্তিতে নামানো হয়েছিল তাকে। এরপর সেই গঙ্গুবাই হয়ে ওঠেছিলেন মুম্বাইয়ের সবচেয়ে বৃহৎ পতিতালয়ের হর্তাকর্তা। কিন্তু জোড় করে যে সব মেয়েদের এই পেশায় ঠেলে দেওয়া হত তাদের প্রতি সহানুভূতিশীল ছিলেন তিনি। আগামী ২৫শে ফেব্রুয়ারি বক্স অফিসে মুক্তি পাবে এই ছবি। সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস