যেকোন সংসারেই ঝগড়া-ঝামেলা হয় : টয়া

8

সম্পর্ক মানেই অম্ল-মধুর রসায়ন। এতে সুখের অনুভূতি যেমন থাকে, তেমনি থাকে দুঃখ-অভিমানের পর্ব। আর সম্পর্কটা যদি হয় স্বামী-স্ত্রী, তখন সেখানে দুটো বিষয়ের আধিক্য দেখা যায়। এ ক্ষেত্রে তারকারাও ব্যতিক্রম নন। তারকাদের সংসারেও ঝড়ঝাপটা আসে, কেউ সেটাকে সামলে নেন, কেউ ঝড়ের বেগে হারিয়ে ফেলেন সম্পর্কের বন্ধন। তবে কাজ এবং সংসার দুটো জায়গার গুরুত্ব উপলব্ধি করলে সমস্যা অনেকখানি নিয়ন্ত্রণে থাকে বলে মনে করেন ছোট পর্দার অভিনেত্রী মুমতাহিনা টয়া। তার মতে, যেকোনও সংসারেই ঝগড়া-ঝামেলা হয়। টয়ার ভাষ্য, ‘আমি যদি বলি, আমার সংসারে কোনো ঝামেলা নাই, আমি শতভাগ সুখী সংসার করছি, এটার থেকে বড় মিথ্যা কথা আর কিছু হবে না। একটা সাধারণ দম্পতির মধ্যেও কিছু না কিছু ঝামেলা থাকেই। দুটো মানুষ একটা ছাদের নিচে থাকছে, ঠোকাঠুকি তো লাগবেই। এটা খুব স্বাভাবিক।’ তারকাদের ক্ষেত্রে ঝামেলার সূত্রপাত অন্য জায়গা থেকে হয় বলে মনে করেন টয়া। তিনি বলেন, ‘দেখুন, আমি একজন নায়িকা, আমার স্বামী একজন নায়ক। যখন আমি শুটিং সেটে যাই, নায়ক যে পরিমাণ পাত্তা-গুরুত্ব পায়, একজন নায়িকাও সে পরিমাণ পাত্তাই পায়। দুইজনেরই লেভেল এক জায়গায়। আমার কাছে মনে হয়, কেউ কাউকে ছাড় দিতে চায় না। সবাই নিজের জায়গায়, নিজের সিদ্ধান্তে শক্ত থাকতে চায়। আলাদা যে পারসোনালিটি রিল দুনিয়ায় আছে, সেটা অনেকসময় আমরা রিয়েল (বাস্তব) দুনিয়াতেও বাস করি। আমরা মনে করি, আমি তো একজন! আমার সঙ্গে কেন এটা হবে! এই জায়গা থেকে বের হয়ে আসাটা উচিৎ।’ টয়ার ভাবনায় সাধারণ মানুষ তার তারকাদের মূল বোধের জায়গা একই। তিনি বলেন, ‘আমরা মানুষ। আমাদের সাধারণ মানুষের মতো বোধ থাকে, আমাদেরও ঈর্ষা কাজ করে, ইগো সমস্যা কাজ করে। আমাদের ইনসিকিউরিটি কাজ করে।

আমি যদি দেখি আমার পার্টনার আমার চেয়ে অনেক ভালো কাজ করছে, ব্যাক টু ব্যাক কাজ করে যাচ্ছে, মানুষের পছন্দ হওয়ার মতো আমার কোনো কাজ হচ্ছে না; তখন আমি কিন্তু ইনসিকিউরিটিতে ভুগবো। সেটা থেকে হয়ত আমি স্বামীর সঙ্গে বাজে ব্যবহার করে ফেলতে পারি কিংবা যেখানে কাজ করছি, সেখানকার মানুষের সঙ্গে বাজে ব্যবহার করে ফেলতে পারি। এজন্য আসলে নিজেকেই নিজে বোঝানো দরকার যে, আমি আসলে কোথায় আছি, আমার পার্টনার কোন অবস্থানে আছে।’ তারকা দম্পতিদের মধ্যকার জটিলতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে শোবিজ জগতেরও কিছুটা প্রভাব আছে বলে মনে করেন টয়া।

তার ভাষ্য, ‘আমাদের ইন্ডাস্ট্রিটাই এরকম যে, যাদের সঙ্গে কাজ হয়, টানা তাদের সঙ্গেই কাজ করতে থাকি। নায়ক যদি বারবার একটা নায়িকার সঙ্গে কাজ করতে থাকে, তখন ঘরের বউয়ের একটু কষ্ট লাগতেই পারে। আমাদের আশেপাশের পরিবেশটাই এমন, অনেক কিছু ভাবতে বাধ্য করে দেয়। এটা নিয়ে কিন্তু একটা মানসিক যুদ্ধ করি আমরা নিজেদের সঙ্গে।’ ব্যক্তিগত এবং পেশাগত জীবনের এমন আরও অনেক বিষয়ে সংবাদমাধ্যমে কথা বলেছেন মুমতাহিনা টয়া।