যুক্তরাষ্ট্রকে কোপা জেতাবেন কাকা!

74

08-KAKA

না, যুক্তরাষ্ট্রের বুদ্ধির তারিফ করতেই হচ্ছে। এত আগে ভাগে এসব চিন্তা করে রাখে তারা! কোপা আমেরিকার শতবর্ষ উদ্যাপিত হবে এ বছর। এ উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে আয়োজিত হবে কোপার বিশেষ আসর। নিজেদের মাটিতে আয়োজিত এ আসরে অধরা এ শিরোপা জেতার জন্য তো সব আয়োজন সেরে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র! দুই বছর আগেই তুরুপের তাসটি খেলে রেখেছে তারা! যুক্তরাষ্ট্রের তুরুপের তাসের নাম কি জানেন? কাকা! ব্রাজিলিয়ান এই তারকা মিডফিল্ডার ২০১৪ সালেই নাম লিখিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের অরল্যান্ডো সিটিতে। মেজর লিগ সকারের (এমএলএস) এই ক্লাবের সঙ্গে কাকার নাম জড়ানো মানেই তো টিম হাওয়ার্ড ও ক্লিন্ট ডেম্পসিদের এবারের কোপা আমেরিকা জেতা নিশ্চিত! একটু অদ্ভুত শোনাতেই পারে, কাকা যুক্তরাষ্ট্রে খেলার সঙ্গে কোপার শিরোপা জেতার সম্পর্ক কী? সে ক্ষেত্রে একটু পেছনে ফিরে তাকাতে হচ্ছে সবাইকে। ২০০২ বিশ্বকাপ কে জিতেছিল খেয়াল আছে? ব্রাজিল। কাকা তাঁর ক্যারিয়ারের ওই সময়টুকু পার করেছেন ব্রাজিলের সাও পাওলো ক্লাবে। আন্তর্জাতিক ফুটবলে তাঁর নাম ছড়িয়ে পড়ায় ২০০৩ সালে তাঁকে দলে ভেড়ায় এসি মিলান। ২০০৩ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত কাকা ছিলেন ইতালিয়ান এই ক্লাবটিতে। ২০০৬ বিশ্বকাপ জিতেছিল ইতালি। ২০০৯-১০ মৌসুমে তখনকার দলবদলের বিশ্ব রেকর্ড গড়ে তাঁকে দলে ভেড়ায় স্প্যানিশ পরাশক্তি রিয়াল মাদ্রিদ। ২০১০ বিশ্বকাপ কার ঘরে গিয়েছিল মনে আছে নিশ্চয়Ñস্পেন। ২০১২ ইউরো শিরোপাও গেল স্পেনের কাছে। ২০১৩ সালের জুনে রিয়াল মাদ্রিদ ছাড়েন কাকা। ভাগ্যও যেন স্পেনকে ছেড়ে গেল। ২০১৪ বিশ্বকাপে ফেবারিট হয়েও গ্রুপ পর্ব থেকে ফিরে এসেছিল স্পেন। বয়স ও চোট মিলিয়ে মাঠের জাদু অনেকটাই হারিয়ে ফেলেছেন কাকা। তবে ২০১৪ বিশ্বকাপেই যেন সেই ‘সৌভাগ্যের জাদু’টাও হারিয়ে ফেলেছিলেন। এসি মিলানে থাকার পরও ইতালি বিশ্বকাপ জিতল না, বিশ্বকাপ জিতল জার্মানি। অবশ্য দলটি জার্মানি ছিল বলেই কাকার অলৌকিক ক্ষমতা আশা এখনো করতে পারে যুক্তরাষ্ট্র। কারণ, ফুটবলে জার্মানি নিয়ে কিছু বলাটাই তো ঝুঁকিপূর্ণ। গ্যারি লিনেকার তো অনেক আগেই বলে দিয়েছেন, ‘ফুটবল খুব সোজা খেলা। ২২ জন খেলোয়াড় ৯০ মিনিট বল নিয়ে দৌড়ায়, ম্যাচ শেষে জার্মানিই জেতে!’ তবে কোপা আমেরিকায় তো জার্মানি বাগড়া দিতে পারছে না। যুক্তরাষ্ট্র আশায় বুক বাঁধতেই পারে! অন্তত কাকা যখন তাদের ক্লাব ফুটবলেই খেলছেন!