ম্যানিংয়ের সাজা হ্রাসে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা হয়েছে : ওবামা

119

04-USউইকিলিকসকে যুক্তরাষ্ট্রের গোপন নথিপত্র দেওয়ার অভিযোগে দ-প্রাপ্ত মার্কিন সেনা চেলসি ম্যানিংয়ের সাজা ২৮ বছর কমানোর সিদ্ধান্তের পক্ষে কথা বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। বিদায় নেওয়ার মাত্র তিনদিন আগে ওবামা মঙ্গলবার ম্যানিংয়ের সাজা ৩৫ বছর থেকে কমিয়ে সাত বছর করায় তার কড়া সমালোচনা করেছেন রিপাবলিকানকরা। বিবিসি জানিয়েছে, গত বুধবার প্রেসিডেন্ট হিসেবে হোয়াইট হাউসে নিজের শেষ সংবাদ সম্মেলনে ওবামা বলেন, তার এই সিদ্ধান্তে ‘ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে’। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক সামরিক গোয়েন্দা বিশ্লেষক ম্যানিংকে কঠোর সাজা দেওয়া হয়েছে এবং তার দ- হ্রাসে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের গোপনীয়তা ফাঁসকারীদের জন্য কোনো প্রশ্রয়ের ইঙ্গিত নেই বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেছেন তিনি, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। ম্যানিং বিচারের মুখোমুখি হয়েছেন, নিজের কৃতকর্মের দায়িত্ব নিয়েছেন এবং অন্যান্য গোপনতথ্য ফাঁসকারীদের তুলনায় তার দ- সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়নি, এসব বিবেচনায় ম্যানিংয়ের দ- হ্রাস সঠিক হয়েছে অনুভব করছেন বলে মন্তব্য করেন ওবামা।
তিনি বলেন, ন্যায়বিচার হওয়ায় আমি খুব স্বস্থি অনুভব করছি। ২০১০ সালে গোপনীয়তা-বিরোধী গোষ্ঠী উইকিলিকসের হাতে যুক্তরাষ্ট্রের সাত লাখেরও বেশি গোপন নথি, ভিডিও, কূটনৈতিক বার্তা এবং যুদ্ধক্ষেত্রের ভাষ্য তুলে দিয়েছিলেন ম্যানিং। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে কূটনৈতিক নথি ফাঁসের সবচেয়ে বড় এ ঘটনায় ২০১৩ সালে ম্যানিংকে ৩৫ বছরের সাজা দেওয়া হয়েছিল। দ-ের পুরো মেয়াদ জেলে থাকতে হলে বর্তমানে ২৯ বছর বয়সী ম্যানিং ২০৪৫ সালের আগে মুক্তি পেতেন না। সাজা কমায় চলতি বছরের ১৭ মের মধ্যে মুক্তি পাবেন ম্যানিং, যিনি বিচার চলার মধ্যেই ২০১৩ সালে নিজেকে নারী ঘোষণা করে নতুন আলোচনার জন্ম দিয়েছিলেন। দ- হ্রাস করে গোপনীয়তা ফাঁসকারীদের পক্ষে ‘ভয়াবহ নজির’ স্থাপন করা হল মন্তব্য করে ওবামার এই সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসের রিপাবলিকান সদস্যরা। কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার রিপাবলিকান পল রায়ান গত বুধবার বলেছেন, এ সিদ্ধান্তে একটি বিপদজনক নজির স্থাপিত হল। দলটির প্রভাবশালী সিনেটর জন ম্যাককেইন এক বিবৃতিতে সাজা কমানোর সিদ্ধান্তকে ‘বড় ভুল’ অ্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন, এটি আরও অনেককে গুপ্তচরবৃত্তিতে উৎসাহিত করবে। যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মন্ত্রীসভার তথ্যমন্ত্রী শন স্পাইসার বলেছেন, এই সিদ্ধান্ত গুরুতর সমস্যা তৈরি করার মতো বার্তা দিয়েছে।