মৃণাল রূপে চঞ্চলের এক্সক্লুসিভ লুক প্রকাশ

2

ভারতীয় উপমহাদেশের চলচ্চিত্রে মৃণাল সেনকে বলা যায় একটা ইনস্টিটিউট। সে মৃণাল সেনের বায়োপিক হচ্ছে, নির্মাণ করছেন কলকাতার সৃজিত মুখ্যার্জী। আর এতে অভিনয় করবেন দেশের খ্যাতিমান অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। গতকাল শুক্রবার প্রকাশিত হলো ছবিটিতে তার এক্সক্লুসিভ লুক। মৃণাল সেনের জন্ম শতবর্ষ উপলক্ষে তার বায়োপিকটি বানানো হচ্ছে। ‘পদাতিক’ নামের সেই বায়োপিকে মৃণালের চরিত্রে চঞ্চল চৌধুরীর লুক প্রকাশ করেছে কলকাতার ম্যাগাজিন আনন্দলোক। মৃণালের স্ত্রী গীতা সেনের চরিত্রে আছেন মনামী ঘোষ। প্রকাশ পেয়েছে সেই লুকও। এর আগে মৃণাল সেনের চরিত্রে চঞ্চলকে নেওয়ার কারণ হিসেবে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে সৃজিত বলেন, প্রথমত দুই জনের মুখের মিল আছে। সেটা কাকতালীয়। কিন্তু মৃণালবাবুর মতোই চঞ্চলের চোখের দৃষ্টি অত্যন্ত ধারালো এবং সজাগ। তা ছাড়াও মৃণালবাবুর রাজনীতি চেতনা, তার যাপন ও দৃষ্টিভঙ্গির সঙ্গেও চঞ্চলের প্রচুর মিল। সেটা কাকতালীয় হতে পারে। কিন্তু মিলটা আছে। শুরুতে মৃণাল সেনকে নিয়ে ‘পদাতিক’ নামে ওয়েব সিরিজ বানাতে চেয়েছিলেন সৃজিত। গত মে মাসে এর পোস্টারও প্রকাশ করেছিলেন তিনি। সেখানে চঞ্চলকেই মনে মনে মৃণাল হিসাবে রেখেছিলেন তিনি। কিন্তু পরে বদলে যায় নির্মাতার সিদ্ধান্ত। মৃণাল সেনের বায়োপিক বানাবেন বলে ঠিক করেন। তবে সিরিজ সিনেমায় রূপ নিতে চললেও মূল চরিত্রে চঞ্চলকেই রাখলেন তিনি। গেল কয়েকবছর ধরে চঞ্চলের জনপ্রিয়তা দেশের গ-ি পেরিয়েছে। সেই ধারাবাহিকতায় তার অভিনীত ‘কারাগার’ ওয়েব সিরিজটি দুই বাংলায় হইচই ফেলে দেয়। ২২ ডিসেম্বর মুক্তি পেয়েছে সিরিজটির দ্বিতীয় কিস্তি। এটিও সমাদর পেয়েছে দর্শকের। এছাড়া কলকাতাসহ পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পেয়েছে চঞ্চল অভিনীত ‘হাওয়া’ সিনেমা। এর আগে নভেম্বরে কলকাতায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছিল সিনেমাটি। সেসময় এটি দেখার জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়েছিল সেখানকার দর্শক।