মাদকমুক্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জ গড়তে ডোপ টেস্ট শুরু হচ্ছে

11

মাদক ও মাদকাসক্ত মুক্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জ গড়ার লক্ষ্য নিয়ে নতুন করে মাঠে নামছে জেলা প্রশাসন ও জেলা পুলিশ। এ জন্য মাদক বিরোধী অভিযানের পাশাপাশি সামাজিকভাবে সচেতনতা বৃদ্ধিসহ ডোপ টেস্ট করে মাদকাসক্ত শনাক্ত করা হবে।
জেলা প্রশাসনের ফেসবুক পেজে এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে বলা হয়েছে, “মাদকমুক্ত চাঁপাইনবাবগঞ্জ” কর্মসূচির অংশ হিসেবে জেলায় কর্মরত সকল সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীর ডোপ টেস্ট করা হবে।
অন্যদিকে নিজ দপ্তরে আলাপকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার টি.এম. মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম-পিপিএম মাদক প্রসঙ্গে বলেন-আগামি এক সপ্তাহের মধ্যেই ডোপ টেস্ট কার্যক্রম শুরু করা হবে। এ জন্য চিকিৎসকদের সাথে আলোচনা চলছে। তিনি বলেন- প্রথমেই পুলিশ সদস্যদের ডোপ টেস্ট করা হবে। টেস্টে যদি কোনো পুলিশ সদস্যের দেহে মাদক পাওয়া যায় তাহলে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। এরপরই শহর ও গ্রামের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে সন্দেহভাজন মাদকাসক্তদের আটক করে ডোপ টেস্ট করা হবে। যার মধ্যে মাদক পাওয়া যাবে তাকে মাদক নিরাময় কেন্দ্রে পাঠানো হবে এবং তাদের অভিভাবকদের কাছ থেকে মুচলেকা নেয়া হবে। কারণ, অনেক মাদক সেবানকারীর বাবা মা জানেই না তাদের সন্তানরা মাদক সেবন করে। কাজেই এখন ফাঁকি দেয়া যাবে না।
জেলা পুলিশের শীর্ষ এ কর্মকর্তা আরো বলেন-মাদক সেবনকারীরা ধরা পড়ছে এবং ছাড়া পেয়ে আবার মাদক সেবন করছে, ফলে তারা শোধরাবার সুযোগ পাচ্ছে না। ডোপ টেস্টের মাধ্যমে তারা নিজেদের শুধরে নেবারও সুযোগ পাবে এবং জেলাও মাদকাসক্ত থেকে মুক্ত হবে। পর্যায়ক্রমে সন্দেহভাজন সকলের ডোপ টেস্ট করা হবে বলে তিনি জানান।
মাদকের ব্যাপারে জেলা পুলিশ আগেও জিরো টলারেন্সে ছিল, বর্তমানেও আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে উল্লেখ করে পুলিশ সুপার বলেন-মাদক বিরোধী অভিযান আরো জোরদার করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য, পুলিশ, জনপ্রশাসন, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কেউ মাদক সেবন করেন এমন অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইতো:পূর্বে মাদক পরীক্ষা চালুর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।
সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদকের বিরুদ্ধে তাঁর সরকারের কঠোর মনোভাব পুনর্ব্যক্ত করে বলেছেন মাদকমুক্ত দেশ গঠন করতে হবে। মাদকের সাখে সংশ্লিষ্ট কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। তবে এটাও দেখতে হবে যেন কোনো নিরীহ মানুষ হয়নাণির স্বীকার না হয় এবং মাদকাসক্তরা যেন নিজেদের শুধরে নেয়ার সুযোগ পায় সেদিকেও নজর দিতে বলেন তিনি।