ভোগে চাপা পড়েছে বড়দিনের প্রকৃত তাৎপর্য : পোপ

108

01খ্রিস্টীয় ‘বড়দিনের’ প্রকৃত তাৎপর্য বস্তুগত ভোগ-বিলাসের মধ্যে নিমজ্জিত হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন পোপ ফ্রান্সিস। গত শনিবার ভ্যাটিকানে বড়দিনের আগের দিন সন্ধ্যার প্রার্থনা সভায় রোমান ক্যাথলিক গির্জার প্রধান পোপ বিশ্বব্যাপী শিশুদের নিরবিচ্ছিন্ন দুর্ভোগেরও নিন্দা জানান। বিবিসির খবরে বলা হয়, তিনি ক্ষুধার্ত, অভিবাসন রুটগুলোতে বিপদের মধ্যে পড়া এবং আলেপ্পোসহ সিরিয়ার শহরগুলোতে বোমাবর্ষণের শিকার হওয়া মানুষের কথা স্মরণ করেন। অনুষ্ঠান চালাকালে ভ্যাটিকানজুড়ে কড়া নিরাপত্তা নেওয়া হয়। সেন্ট পিটার্স ব্যাসিলিকার ওই প্রার্থনা সভায় যারা যোগ দিতে এসেছিলেন তাদের মেটাল ডিটেক্টরের মধ্য দিয়ে ভিতরে প্রবেশ করতে হয়। ‘বড়দিনের’ আগে বার্লিনে ট্রাক হামলাসহ ইউরোপজুড়ে বেশ কয়েকটি সন্ত্রাসী হামলার কারণে ভ্যাটিকানের সমাবেশেও নিরাপত্তাহীনতার বোধ ঘিরে রেখেছিল বলে জানিয়েছেন বিবিসির প্রতিনিধি। যিশুখ্রিস্টের জন্মদিন উপলক্ষে শুরু হওয়া ‘বড়দিন’ পরবের প্রথম এ অনুষ্ঠানে পোপ বলেন, বস্তুগত বিষয়গুলো ক্রিসমাস পরবকে ‘জিম্মি’ করে ফেলেছে, তাই এবারের পরবে আরো ‘ন¤্রতা’ আসা দরকার। তিনি বলেন, “আমরা এমন এক সময়ে বাস করছি যখন বাণিজ্যের আলো খোদার আলোকে ছায়া বানিয়ে ফেলেছে, আমরা গিফটের জন্য অধীর থাকলেও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সঙ্গে শীতল ব্যবহার করি। গত প্রত্যেকটি বছরে শরণার্থীদের প্রতি সহানুভুতি দেখানোর আহ্বান জানিয়েছেন পোপ, এবারও একই আহ্বান জানিয়ে যিশু একজন অভিবাসী ছিলেন বলে খ্রিস্টানদের স্মরণ রাখতে বলেছেন তিনি।