ভক্তদের কাছে সমর্থন চান বার্সা কোচ

6

দায়িত্ব নিয়েছেন এমন এক সময়ে, যখন দলের ধারাবাহিক ব্যর্থতায় কিছুটা মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন সমর্থকরাও। বার্সেলোনার কোচ হিসেবে দলকে মাঠে সফল করার পাশাপাশি তাই চাভি এরনান্দেসের সামনে রয়েছে আরেকটি চ্যালেঞ্জও; কাম্প নউয়ের গ্যালারিতে ফিরিয়ে আনতে হবে প্রাণ। মাঠে এসে দলকে সমর্থন দেওয়ার জন্য ভক্তদের প্রতি আহ্বান জানালেন ক্লাবটির সাবেক এই মিডফিল্ডার। দলের টানা ব্যর্থতার দায়ে চাকরি হারানো কোচ রোনাল্ড কুমানের জায়গায় শুরুতে অস্থায়ীভাবে দায়িত্ব পান বার্সেলোনা ‘বি’ দলের কোচ সের্হি বারজুয়ান। পরে গত ৬ নভেম্বর তারই স্থলাভিষিক্ত হন চাভি।

আন্তর্জাতিক বিরতির পর শনিবার লা লিগায় এস্পানিওলের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে কাতালান ক্লাবটিতে শুরু হতে যাচ্ছে কোচ হিসেবে চাভির নতুন যাত্রা। স্পেনের হয়ে ২০১০ বিশ্বকাপ ও দুটি ইউরো জয়ী চাভির জন্য নতুন ভূমিকায় চলার পথটা খুব একটা সহজ হতে যাচ্ছে না। লিওনেল মেসিকে ছেড়ে দেওয়া, অঁতোয়ান গ্রিজমানকে ধারে আতলেতিকো মাদ্রিদে পাঠানো, একের পর এক চোট সমস্যা, লা লিগা ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ধারহীন পারফরম্যান্স-সব মিলিয়ে বার্সেলোনাকে নিয়ে দিনকে দিন আশা হারিয়ে ফেলেছেন সমর্থকরাও। এর প্রভাব পড়ছে ঘরের মাঠে দলটির ম্যাচে দর্শক উপস্থিতিতেও। ৯৯ হাজারের বেশি দর্শক ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন কাম্প নউয়ে চলতি মৌসুমে খালি থাকছে গ্যালারির অর্ধেকরও বেশি অংশ।

লিগে সবশেষ আলাভেসের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র ম্যাচে মাত্র ৩৭ হাজারের কিছু বেশি দর্শক এসেছিল মাঠে। গত দুই দশকে ছুটির দিনে লিগ ম্যাচে ক্লাবটির ইতিহাসে যা সর্বনিম্ন দর্শক উপস্থিতি। তবে খেলোয়াড় হিসেবে দলকে অনেক সাফল্য এনে দেওয়া চাভি কোচ হয়ে ফেরায় নতুন করে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে বার্সেলোনা সমর্থকরা। কোচ হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার দিনে কাম্প নউয়ে হাজার হাজার সমর্থক জড়ো হয়েছিলেন। শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে ম্যাচের সময়েও সমর্থকদের একইভাবে মাঠে আসার আহ্বান জানালেন চাভি। প্রতিশ্রুতি দিলেন, মাঠে শতভাগ দিয়েই লড়ার। “আমি সমর্থকদের পাশে থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। মাঠে আমাদের লড়াকু মানসিকতার অভাব থাকবে না। আপনারা নিশ্চিত থাকতে পারেন যে আমরা শতভাগ উজাড় করে দেব। আমাদের সাহায্য করার জন্য মাঠে আসুন।”

“আমরা বার্সা, আমাদের একসঙ্গে থাকতে হবে। (কোচ হিসেবে) আমাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার দিনে আপনারা যেভাবে সমর্থন জানিয়েছেন, সেভাবেই পাশে থাকলে আমার জন্য ভালো হবে।” এক মৌসুম পর এবার আবারও স্পেনের শীর্ষ লিগে ফেরা এস্পানিওলের সঙ্গে গত বছর সবশেষ দেখায় ১-০ গোলে জিতেছিল বার্সেলোনা। ভিন্ন ভূমিকায় নতুন শুরুর আগে স্বাভাবিকভাবেই কিছুটা স্নায়ুচাপে ভুগছেন চাভি। তবে এটাও বললেন, খেলোয়াড় হিসেবে চাপটা ছিল আরও বেশি। “স্নায়ুচাপ অনেক থাকবে এবং আমাদের সেটা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে…আমি ছেলেদের বলেছি যে তাদের মাঠে শান্ত থাকতে হবে, কারণ তাদের প্রতিদ্বন্দ্বীরা ভালোভাবে প্রস্তুত থাকবে।” “খেলোয়াড় হিসেবে যতটা নার্ভাস থাকতাম এখন কোচ হিসেবে তার চেয়ে কম থাকি। আমি বার্সেলোনায় ফিরতে পেরে খুশি এবং আগামী ম্যাচের জন্য মুখিয়ে আছি।” চলতি লা লিগায় ১২ ম্যাচে চার জয় ও পাঁচ ড্রয়ে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে বার্সেলোনা আছে নবম স্থানে। শীর্ষে থাকা রিয়াল সোসিয়েদাদের চেয়ে তারা ১১ পয়েন্টে পিছিয়ে আছে।