ব্রিটনি গ্রাইনারের মুক্তিতে ভক্তদের উচ্ছ্বাস

3

দুবারের অলিম্পিক সোনাজয়ী মার্কিন বাস্কেটবল খেলোয়াড় ব্রিটনি গ্রাইনারকে মুক্তি দিয়েছে রাশিয়া। গত বৃহস্পতিবার তাকে কারাগার থেকে মুক্তি দেওয়া হয়। তার মুক্তিতে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন দীর্ঘদিন ধরে তার প্রত্যাবর্তনের অপেক্ষায় থাকা ভক্তরা। সম্প্রতি বন্দি প্রত্যার্পণ চুক্তির মাধ্যমে ব্রিটনিকে মুক্তি দেওয়া হবে বলে আগেই জানিয়েছিল রাশিয়া। অবশেষে ১০ মাস পরে তাকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তর করলো মস্কো। অন্যদিকে, একই চুক্তির আওতায় যুক্তরাষ্ট্রও মুক্তি দিয়েছে রুশ অস্ত্র ব্যবসায়ী ভিক্টর বাউটকে। এরইমধ্যে বাউট মস্কোয় পৌঁছে গেছেন। নিজ দেশের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন ব্রিটনিও। সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবু ধাবি বিমানবন্দরে তাদের হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যে সম্পর্ক সাম্প্রতিক সময়ের মধ্যে সবচেয়ে বেশি তিক্ত হয়ে ওঠে। তা সত্ত্বেও ব্রিটনির মুক্তির জন্য যুক্তরাষ্ট্র গত কয়েকমাস ধরে রাশিয়ার সঙ্গে ধারাবাহিক আলোচনা চালিয়ে গেছে। অবশেষে বন্দি প্রত্যার্পণ চুক্তির মাধ্যমে তা সম্ভব হলো। মার্কিন প্রশাসন জানায়, এক ভয়াবহ অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে গেছেন ব্রিটনি। তবে শারীরিকভাবে তিনি সুস্থ আছেন। অন্যদিকে, হোয়াইট হাউসে এক সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জানান, ব্রিটনি ভালো আছেন। তিনি টেক্সাসের উদ্দেশ্যে বিমানে উঠে পড়েছেন, কিছুক্ষণের মধ্যেই পরিবারের কাছে পৌঁছে যাবেন। সাবেক মার্কিন মেরিন পল ওয়েল্যানের মুক্তিও চেয়েছিলেন বাইডেন। কিন্তু রাশিয়া ক্রেমলিন তাকে ছাড়তে রাজি হয়নি। এ বিষয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের হাতে দুটি বিকল্প ছিল। কাউকেই নেওয়া যাবে না, অথবা শুধু ব্রিটনিকে নিতে হবে। এ বছরের ফেব্রুয়ারিতে সামান্য গাঁজার তেল রাখার অপরাধে মস্কো বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ব্রিটনিকে। পাঠানো হয় কারাগারে, রাখা হয় সাধারণ কয়েদিদের সঙ্গে। ওয়াশিংটনের দাবি, তার সঙ্গে খুব খারাপ ব্যবহার করে রুশ কর্তৃপক্ষ। তবে ব্রিটনি কখনোই ভেঙে পড়েননি। অন্যদিকে, ২০১২ বেআইনি অস্ত্র ব্যবসার অপরাধে যুক্তরাষ্ট্র থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ৫৫ বছর বয়সী ভিক্টর বাউটকে। ওই বছরের ২৫ বছরের কারাদ- দেওয়া হয় তাকে। কিন্তু শাস্তি শেষ হওয়ার অনেক আগেই মুক্তি পেলেন তিনি। সূত্র: আল জাজিরা