বেয়ারস্টোর সেঞ্চুরিতে বিপর্যয় এড়িয়ে লড়ছে ইংল্যান্ড

3

৩৬ রানে সাজঘরে শীর্ষ চার ব্যাটার। চোখে রীতিমত সর্ষেফুল দেখছিল ইংল্যান্ড। সেখান থেকে দলকে লড়াইয়ে ফিরিয়েছেন জনি বেয়ারস্টো। পঞ্চম উইকেটে বেন স্টোকসকে নিয়ে ১২৮ রানের জুটির পর লোয়ার অর্ডারের মার্ক উডের সঙ্গে ৭২ রান তুলে ইংলিশদের ফলোঅনের শঙ্কা থেকে বাঁচিয়েছেন তিনি। সিডনিতে অস্ট্রেলিয়ার ৮ উইকেটে ৪১৬ রানের জবাবে ৭ উইকেটে ২৫৮ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শেষ করেছে ইংল্যান্ড। এখনও তারা পিছিয়ে ১৫৮ রানে। তবে উইকেটে এখনও আশার আলো হয়ে টিকে রয়েছেন সেঞ্চুরিয়ান বেয়ারস্টো। চলতি অ্যাশেজ সিরিজে ইংলিশ ব্যাটারদের দুর্দশা যেন কাটছেই না। টানা তিন হারে আগেভাগেই সিরিজ খোয়ানো ইংল্যান্ড সিডনিতে সিরিজের চতুর্থ টেস্টে ব্যাটিংয়ে নেমেও পড়ে চরম বিপর্যয়ের মুখে।

৪ উইকেটে ৩৬ রান নিয়ে তৃতীয় দিনের লাঞ্চ বিরতিতে যায় জো রুটের দল। এই টেস্টে প্রতিদিনই বাগড়া দিচ্ছে বৃষ্টি। তৃতীয় দিনেও তার ব্যতিক্রম হয়নি, খেলা হয়েছে ৬৫ ওভার। ৫ ওভারে বিনা উইকেটে ১৩ রান নিয়ে খেলতে নেমেছিল ইংল্যান্ড। সারাদিনে তারা যোগ করেছে ২৪৫ রান, উইকেট হারিয়েছে ৭টি। দিনের শুরুতে প্রথম কয়েকটা ওভার দেখেশুনেই খেলেছিলেন হাসিব হামিদ আর জ্যাক ক্রলি। কিন্তু বেশিক্ষণ স্বস্তি থাকেনি। ৩৯ বলে ৩ রান করা হাসিব হামিদকে দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে বোল্ড করেন মিচেল স্টার্ক। তারপরই শুরু হয় মড়ক। ৫৫ বলে ব্যক্তিগত ১৮ রানে বোল্ড হন ক্রলিও। তার উইকেটটি নেন চমক দেখিয়ে এই সিরিজেই অভিষেক হওয়া স্কট বোল্যান্ড। ইংল্যান্ডের বিপর্যয় আরও ঘণীভূত হয় বরাবরের ভরসা জো রুটও বোল্যান্ডকে উইকেট দিয়ে আসলে। রানের খাতা খোলার আগেই দ্বিতীয় স্লিপে ক্যাচ হন ইংলিশ দলপতি।

পরের ওভারে ডেভিড মালানকে (৩) তুলে নেন ক্যামেরুন গ্রিন। ফলে ৩৬ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে ইংলিশরা। ওই অবস্থাতেই যায় লাঞ্চ বিরতিতে। তবে বিরতির পর বেয়ারস্টো-স্টোকসের জুটিতে লড়াইয়ে ফেরে সফরকারি দল। দ্বিতীয় সেশনে একটি উইকেটও না হারিয়ে ইংল্যান্ড যোগ করে ৯৯ রান। তৃতীয় সেশনে আবারও চেপে ধরে অস্ট্রেলিয়া। ১২৮ রানের বড় জুটি গড়ে নাথান লিয়নের বলে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে পড়েন বেন স্টোকস। ৯১ বলে ৯ বাউন্ডারি আর এক ছক্কায় ইংলিশ অলরাউন্ডার করেন ৬৬ রান। এরপর দ্রুত আরও এক ব্যাটারকে হারিয়ে বসে ইংলিশরা।

রানের খাতা খোলার আগেই প্যাট কামিন্সের শিকার হন জস বাটলার। ১৭৩ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে তখন ফলোঅনের শঙ্কায় ইংল্যান্ড। তবে মার্ক উড ঝড়ো ব্যাটিংয়ে সেই শঙ্কা উড়িয়ে দিয়েছেন। অষ্টম উইকেটে ৭২ বলে ৭২ রানের জুটি গড়েন বেয়ারস্টো-উড। মারমুখী উডকে (৪২ বলে ৪১) বাউন্সারে পরাস্ত করে অবশেষে ফেরান কামিন্স। বল ব্যাটে লেগে হেলমেটে আঘাত করার পর নাথান লিয়ন ক্যাচ নিলে আম্পায়ার সাড়া দেননি। রিভিউ নিয়ে জিতে যায় অস্ট্রেলিয়া। তারপরও দাঁতে দাঁত চেপে সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন বেয়ারস্টো। ১৪০ বলে ৮ বাউন্ডারি আর ৩ ছক্কায় ১০৩ রানে অপরাজিত রয়ে গেছেন তিনি। সঙ্গে ৪ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে জ্যাক লিচ।