বিশ্ববাজারে কমলেও দেশীয় বাজারে গমের দাম ঊর্ধ্বমুখী

113

wheat-gomবিশ্ববাজারে গমের দাম কমলেও দেশীয় বাজারে বাজারে তা ঊর্ধ্বমুখী। এক্ষেত্রে অজুহাত দেখানো হচ্ছে এক মাসে আন্তর্জাতিক বাজারে কানাডীয় গমের দাম টনপ্রতি ৩০-৩৫ ডলার বেড়ে যাওয়ার দেশীয় বাজারে তার প্রভাব পড়ছে। কিন্তু ক্ষুদ্র ও মাঝারি মানের মিল মালিকদের মতে- গমের দাম বাড়ার পেছনে বড় বড় কোম্পানিগুলোর কারসাজিই দায়ি। এক সপ্তাহ আগে আগে প্রতি মণ গমের দাম ছিল ৭৮০-৭৮৫ টাকা। বর্তমানে দাম বেড়ে তা বিক্রি হচ্ছে ৯০০ টাকায়। অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে গমের দাম মণপ্রতি ১২০ টাকা বেড়েছে। বাজার সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়। সূত্র মতে, চলতি বছরের এপ্রিলে যুক্তরাষ্ট্রের বাজার আদর্শ হার্ড রেড উইন্টার গম টনপ্রতি ১৬৩ ডলারে বিক্রি হয়। একই পরিমাণ পণ্যের দাম কমে মে মাসে ১৫৭ ডলার, জুনে ১৫৬ ডলার, জুলাইয়ে ১৩৩, আগস্টে ১২৭ ও সেপ্টেম্বরে ১২৩ ডলারে বিক্রি হয়। আর যুক্তরাষ্ট্রের বাজার আদর্শ সফট রেড উইন্টার গমের দাম এপ্রিলে ছিল টনপ্রতি ১৯২ ডলার। একই পরিমাণ পণ্য মে মাসে ১৮৯ ডলার, জুনে ১৮৭ ডলার, জুলাইয়ে ১৬৫ ডলার, আগস্টে ১৫৯ ডলার ও সেপ্টেম্বরে দাম কমে বিক্রি হয় ১৫৭ ডলারে। কিন্তু বাজারে যখন বড় বড় কোম্পানির পণ্য অপেক্ষাকৃত কম চলে তখন তারা একজোট হয়ে গমের দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে। তাতে দেশের ছোট ও মাঝারি মানের মিলগুলো তাদের সাথে পাল্লা দিয়ে পেরে উঠতে পারে না। বড় মিলারদের কাছে যখন বিপুল পরিমাণ আটা-ময়দার মজুদ হয় তখনই তারা সুবিধামতো দামে বিক্রি করে। এই পরিস্থিতিতে গমের দাম বেড়ে যাওয়ায় ময়দার দামও কেজিপ্রতি ৪-৫ টাকা বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। সূত্র জানায়, ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) হিসাব অনুযায়ী বর্তমানে খোলা ময়দা বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৩৪-৩৬ টাকায়। তাছাড়া একই পরিমাণ প্যাকেটজাত ময়দা ৪০-৪২ টাকায় লেনদেন হচ্ছে। বর্তমানে রাজধানীর মৌলভীবাজারে পাইকারি পর্যায়ে ময়দা লেনদেন হচ্ছে প্রতি কেজি ২৭-২৮ টাকায়।আর ২০১৪-১৫ অর্থবছরে দেশে মোট গম উৎপাদন হয়েছে ১৩ লাখ ৪৮ হাজার টন। তবে দেশে সারাবছর পণ্যটির চাহিদা প্রায় ৪০ লাখ টন। অবশিষ্ট গম কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, রাশিয়া, ইউক্রেন, ভারত থেকে আমদানি করে চাহিদা পূরণ করা হয়। এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জের বিএসএম গ্রুপের চেয়ারম্যান আবুল বশার চৌধুরী জানান, এক-দেড় মাস ধরে আন্তর্জাতিক বাজারে কানাডিয়ান গমের দাম টনপ্রতি ৩০-৩৫ ডলার বেড়েছে। তার প্রভাব কিছুটা দেশের বাজারেও পড়েছে। চট্টগ্রামে প্রতি কেজি গমে ১ থেকে ১ টাকা ৭৫ পয়সা দাম বেড়েছে। তাতে ময়দা তৈরি হলে কেজিপ্রতি ২ থেকে আড়াই টাকা দাম বাড়বে। তবে অস্ট্রেলিয়া কিংবা অন্যান্য দেশের গমের দাম কমতির দিকে আছে।