বাস টার্মিনালসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মশা নিধন অভিযান

8

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম ও ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ প্রতিরোধ বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়াতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়েছে। পাশাপাশি আশপাশের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখতে স্প্রে করা হয়েছে।
সোমবার সকালে গ্রামীণ ট্রাভেলস এ কর্মসূচির আয়োজন করে। পরে কর্মসূচিতে যোগ দেয় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ। গ্রামীণ ট্রাভেলসের চেয়ারম্যান মো. মোখলেসুর রহমানের উদ্যোগে পৌর এলাকার টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজ, স্বরূপনগর মোহর আলী উচ্চ বিদ্যালয়, বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর কলেজ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম এবং ডেঙ্গু প্রতিরোধে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের হাতে গ্রামীণ ট্রাভেলসের পক্ষ থেকে একটি করে মশা মারার স্প্রে মেশিন তুলে দেয়া হয়। জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ পৃথকভাবে মশক নিধন অভিযান চালায়।
মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ রুহুল আমিন, টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজের অধ্যক্ষ মো. আতিকুল ইসলাম, বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর কলেজের অধ্যক্ষ এজাবুল হক বুলি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. এনামুল হক, চাঁপাইনববাগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফ জামান আকন্দ, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আনোয়ার হোসেন, স্বরূপনগর মোহর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসা. জান্নাতুল ফেরদৌস, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সভাপতি এফকেএম লুৎফর রহমান ফিরোজসহ অন্যরা।
মতবিনিময় শেষে পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম বলেন- সবার ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় পারে সমাজ থেকে ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধ করতে। কোনো একক প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির দ্বারা এ ডেঙ্গু প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। তাই আমাদের সমাজে বিশেষ করে চাঁপাইনবাবগঞ্জে যাতে এ এডিস মশা কোনো জায়গাতে জন্মাতে না পারে এজন্য নিজেদের সচেতন থাকতে হবে। নিজের বাড়িঘর, বাড়ির চারপাশ বা বাসার ছাদ-কার্নিসে কোনো পাত্রে পানি জমে না থাকে তা আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে। পুলিশ সুপার বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে জেলা পুলিশের ৭৫০ সদস্য কাজ করছে। এভাবে সমাজের বিভিন্ন স্তরের লোকজনকে এ কাজে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম।