বাসিন্দাদের অবিলম্বে খেরসন ছাড়ার আহ্বান রাশিয়ার

5

অধিকৃত খেরসনে রাশিয়ান-স্থাপিত কর্তৃপক্ষ সেখানকার বাসিন্দাদের অবিলম্বে চলে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। ইউক্রেনীয় সৈন্যরা দক্ষিণ ইউক্রেনের শহরটি পুনরুদ্ধার করার জন্য পাল্টা আক্রমণমূলক অভিযান চালাবে এমন আশঙ্কায় এই নির্দেশনা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।রাশিয়ান-স্থাপিত আঞ্চলিক প্রশাসন শনিবার টেলিগ্রাম অ্যাপে একটি বার্তা পোস্ট করেছে যাতে বেসামরিক নাগরিকদের খেরসন শহর ত্যাগ করার দাবি জানানো হয়। বেসামরিক নাগরিকদের রুশ-নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে আরও গভীরে যাওয়ার জন্য একটি নদীর উপর দিয়ে নৌকা ব্যবহার করার আহ্বান জানানো হয়েছে। স্থানীয় নেতা ভøাদিমির সালদো বলেন, খেরসনের ক্রেমলিন-সমর্থিত কর্তৃপক্ষ সমস্ত রাশিয়ান-নিযুক্ত কর্মকর্তা এবং ৬০ হাজার বেসামরিক নাগরিকদের নদী পেরিয়ে সরিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। অন্য একজন রাশিয়ান-স্থাপিত কর্মকর্তা কিরিল স্ট্রেমাসভের বলেছেন, এই অঞ্চল থেকে আনুমানিক ২৫ হাজার মানুষ নদী পার হয়ে গেছে এবং বেসামরিকরা স্বেচ্ছায় স্থানান্তর হচ্ছেন।

এদিকে, ইউক্রেনীয় এবং পশ্চিমা কর্মকর্তারা সম্ভাব্য জোরপূর্বক বাসিন্দাদের রাশিয়া বা রাশিয়া-অধিকৃত অঞ্চলে স্থানান্তরের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। কিয়েভ খেরসন বাসিন্দাদের তাদের স্থানান্তরিত করার প্রচেষ্টা প্রতিরোধ করার জন্য অনুরোধ করেছিল। একজন স্থানীয় কর্মকর্তা অভিযোগ করেছিলেন যে মস্কো বেসামরিক নাগরিকদের জিম্মি করতে এবং তাদের মানব ঢাল হিসাবে ব্যবহার করতে চায়। উল্লেখ্য, রাশিয়া যুদ্ধের প্রথম দিকে আঞ্চলিক রাজধানী শহর খেরসন দখল করে এবং পরবর্তী মাসগুলিতে এই অঞ্চলের অন্যান্য অংশ দখল করে। গত মাসে খেরসনসহ চারটি অঞ্চলকে রুশ ফেডারেশনে যুক্ত করার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। বৃহস্পতিবার, তিনি ইউক্রেনীয় বাহিনীর ক্রমাগত পাল্টা আক্রমণের মধ্যে অঞ্চলগুলিতে সামরিক আইন ঘোষণা করেছিলেন। সূত্র: আল জাজিরা