বাল্যবিবাহ সম্পর্কে সামাজিক ঘৃণা সৃষ্টি করতে হবে : পরামর্শ সভায় জেলা প্রশাসক

3

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ‘শিশুবিবাহ’ প্রতিরোধে জেলা পর্যায়ে পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজ বলেছেন, বাল্যবিবাহ সম্পর্কে সামাজিক ঘৃণা সৃষ্টি করতে হবে। পাশাপাশি বাল্যবিবাহের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে জেল-জরিমানার ব্যবস্থা চলমান থাকবে। সামাজিক এই ব্যাধি দূরীকরণে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। বিশেষ করে পরিবার পরিকল্পনা অফিস, শিক্ষা অফিসার ও শিক্ষক, গ্রামপুলিশ এবং ওয়ার্ড সদস্যদের বিশেষ ভূমিকা রয়েছে।
জেলা প্রশাসক বলেন, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মীরা প্রতিটি বাড়িতে যান, বাল্যবিবাহ সম্পর্কে তারা তথ্য দিতে পারবেন। শিক্ষকদের মাধ্যমে শিক্ষা অফিস শিক্ষার্থী ঝরে পড়ার তথ্য সংগ্রহ করে আমাদের জানাবেন। প্রধান শিক্ষক প্রতিটি শিক্ষকের মাধ্যমে শিক্ষার্থীর তালিকা দেবেন। গ্রামপুলিশ তার গ্রামের কোনো মেয়ের বিবাহ হলো তা জানাবেন। ওয়ার্ড সদস্যরাও তথ্য দিবেন। যদি কোনো গ্রামে বাল্যবিবাহ হয় আর সেই তথ্য আমাদের না জানানো হয় এবং আমরা যদি সেই তথ্য অন্য কোনোভাবে জানতে পারি তাহলে তাদেরকে চাকরিচ্যুত করার জন্য কেবিনেটে চিঠি লেখা হবে। তিনি বলেন, সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ করতে হবে। সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করার আহŸান জানান জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজ। তিনি প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।
বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন, এই আইনের আওতায় শাস্তি, স্থানীয়, জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে বাল্যবিবাহের হার এবং তা প্রতিরোধে করণীয়সহ এ সংক্রান্ত সকল বিষয় ভিডিও ¯øাইডের মাধ্যমে তুলে ধরেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক প্রদীপ কুমার পাÐে।
সভাপতির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. জাকিউল ইসলাম জানান, করোনার সময় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় ৩ মাসে ৫৬২টি বাল্যবিবাহ হয়েছে।
মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেনÑ সহকারী জেলা শিক্ষা অফিসার সাইফুল মালেক, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক কৃষিবিদ মাহমুদুর রহমান, সাংবাদিক আনোয়ার হেসেন দিলু, এসিডির প্রোগ্রাম ম্যানেজার মনিরুল ইসলাম পায়েল।
এসিডি এই সভার আয়োজন করে।