বাইশ দিন ইলিশ আহরণ করবেন না : জেলা মৎস্য কর্মকর্তা

9

চাঁপাইবাবগঞ্জে মৎস্যজীবী, মৎস্য ব্যবসায়ী, আড়তদার, সাংবাদিক ও সুধীজনদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৯ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে ইলিশ মাছ সংরক্ষণের লক্ষে সদর উপজেলা মৎস্য অফিস এ সভার আয়োজন করে।
সোমবার সকালে চাঁপাইবাবগঞ্জ নিউমার্কেট মাছ বাজারে মাছ ব্যবসায়ী শাহজাহান আলীর আড়তে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. আমিমুল এহসান বলেন, ৭০ দিন সাগরে ইলিশ আহরণ বন্ধ রাখার ফলে এবার পর্যাপ্ত ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে, যা দেশে আমিষের চাহিদা পূরণের পাশাপাশি অর্থনীতিতে বিরাট ইতিবাচক ভূমিকা রাখছে। তিনি বলেন-৯ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশের প্রধান প্রজননকাল। তাই ইলিশের বংশ বৃদ্ধির জন্য এসময়কালীন ইলিশ আহরণ, পরিবহন, মজুদ, বাজারজাতকরণ এবং ক্রয়-বিক্রয় সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবো। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কেউ যদি পদ্মায় কিংবা মহানন্দায় ইলিশ আহরণ করে তাহলে তার বা তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এসময় তিনি আরো জানান, এই ২২দিন অলস সময়ে জেলেদের জন্য এবারই প্রথম ২০ টন চাল বরাদ্দ পাওয়া গেছে। যা কয়েকদিনের মধ্যেই ১ হাজার জেলের মাঝে বিতরণ করা হবে। এর মধ্যে জেলা সদরে ৫৫০ ও শিবগঞ্জে ৪৫০ টন দেয়া হবে। এসময়কালীন ইলিশ আহরণ না করার অঙ্গীকার করেন মৎস্য ব্যবসায়ী ও মৎস্যজীবীরা।
সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মাসুদ রানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরো বক্তব্য দেন, জেলা মৎস্য আড়তদার সমিতির সভাপতি হারুন অর রশিদ ও সাধারণ সম্পাদক ইয়াদুল হোসেন।