বলিউড প্রসঙ্গে মুখ খুললেন মহিমা

6

বলিউডের এক সময়ের নিয়মিত মুখ ছিলেন অভিনেত্রী মহিমা চৌধুরী। শাহরুখ খানের সঙ্গে ১৯৯৭ সালে ‘পারদেস’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। এরপর বেশ কয়েকটি ব্যবসাসফল সিনেমাতে কাজ করেছেন মহিমা। তবে বলিউডে নারীদের কাজ সম্পর্কে মহিমা চৌধুরী একবার বলেছিলেন, বলিউড সবসময় কুমারী নায়িকা চায়। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি প্রকৃতপক্ষে কিভাবে মহিলা অভিনেত্রীদের প্রতি আচরণ করে সেই বিষয়ে বেশ কিছু খোলামেলা কথা বলেছিলেন এই অভিনেত্রী। কিভাবে ইন্ডাস্ট্রি ‘পুরুষ আধিপত্যবাদী’ হয়ে অনেক দূর এগিয়েছে সে সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে তিনি প্রকাশ করেছেন, মহিলা অভিনেত্রীদের তাদের ব্যক্তিগত জীবনের কারণে প্রায়ই চলচ্চিত্র থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। ২০২১ সালে ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের সঙ্গে একটি কথোপকথনে মহিমা বলেছিলেন, “আমি মনে করি বলিউড শিল্প এমন একটি অবস্থানে পৌঁছেছে যেখানে মহিলা অভিনেত্রীরা আরো ভাল অংশ, ভাল বেতন এবং ভালো কাজের অনুমোদন পায়।

তারা একটি মহান এবং শক্তিশালী অবস্থান তৈরি করছে। কিন্তু এখানে আপনি যে মুহূর্তে কারো সঙ্গে ডেটিং শুরু করবেন, লোকেরা আপনাকে বাদ দেবে কারণ তারা কেবল একটি কুমারী নায়িকা চায়, যে চুম্বন পর্যন্ত করেনি। আপনি যদি কারো সঙ্গে ডেটিং করেন তবে এটি এমন হবে যে, ‘ওহ! সে ডেটিং করছে!’ যেন এটা মহাপাপ! তিনি আরো বলেন, ‘আপনি যদি বিবাহিত হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার ক্যারিয়ার শেষ হওয়ার পথে থাকবে। আর যদি আপনার একটি সন্তান থাকে তবে এটি একেবারে শেষ হয়ে যাবে। মহিমা ব্যাখ্যা করেছিলেন যে তিনি বলিউডে যোগদানের সময় বৈবাহিক অবস্থা কতটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল। সেই সময়টা ছিল খুবই কঠিন। ’মঙ্গলবার মহিমা চৌধুরীর জন্মদিন। এর আগে জুন মাসে অভিনেতা অনুপম খের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মহিমার স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার খবরটি প্রকাশ করেন। এরপর অভিনেত্রী একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন এবং বলেছিলেন যে তাঁর চুল না থাকায় তিনি কাজ করতে পারবেন না। পরে ক্যান্সারমুক্ত হওয়ার বিষয়েও সকলকে জানিয়েছেন মহিমা। এখন সুস্থ আছেন এই অভিনেত্রী। সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস