বলসোনারো হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন

3

ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারো গত মঙ্গলবার। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন। তিনি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে অবস্থান করছেন। খবর রয়টার্সের। এর আগে বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছিল, তিনি অন্ত্রে ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে তাঁর স্ত্রী মিশেল বলসোনারো জানিয়েছেন। গত সোমবার ইনস্টাগ্রামে মিশেল বলসোনারো জানান, তার স্বামী পেটে অস্বস্তির কারণে পর্যবেক্ষণে ছিলেন। ২০১৮ সালে নির্বাচনী প্রচারকালে তিনি ছুরিকাঘাতের শিকার হয়েছিলেন।

সেই আঘাত-সংশ্লিষ্ট অন্ত্রের ব্যথার কারণে তাঁকে চিকিৎসা নিতে হয়েছে। চিকিৎসক বলেছেন, বলসোনারোর সমস্যা গুরুতর কিছু নয়। গত বছর ব্রাজিলে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হয়। নির্বাচনে বামপন্থী প্রার্থী লুইজ ইনাসিও লুলা দা সিলভার কাছে বলসোনারো পরাজিত হন। লুলার শপথ গ্রহণের আগেই গত ৩০ ডিসেম্বর দেশ ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান বলসোনারো। কট্টর ডানপন্থী রাজনীতিক বলসোনারোর শত শত সমর্থক গত রোববার দেশটির কংগ্রেস ভবন, প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ ও সুপ্রিম কোর্ট ভবনে হামলা চালান। ওই হামলা চালাতে বলসোনারো তাঁর সমর্থকদের উসকানি দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন দেশটির নতুন প্রেসিডেন্ট লুইজ ইনাসিও লুলা দা।

তবে এই অভিযোগ ‘ভিত্তিহীন’ বলে অভিহিত করেছেন বলসোনারো। একই সঙ্গে ‘শান্তিপূর্ণ’ প্রতিবাদের অধিকারের পক্ষে তাঁর অবস্থানের কথা তুলে ধরেছেন। গত ডিসেম্বরে ব্রাজিলে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হয়। এতে বামপন্থী লুলার কাছে বলসোনারো পরাজিত হন। লুলার শপথ গ্রহণের আগেই গত ৩০ ডিসেম্বর তিনি দেশ ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় চলে যান। বলসোনারোর সমর্থকদের হামলার প্রতিবাদে গত মঙ্গলবার ব্রাজিলের অন্যতম বড় শহর সাও পাওলোতে হাজারো মানুষ বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন। গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের সমর্থনে অনুষ্ঠিত এই বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে বলসোনারোকে কারাগারে পাঠানোর জন্য স্লোগান দেওয়া হয়।