বন্ধু নির্বাচন ইসলামের দৃষ্টিতে

102

3

বন্ধুত্ব মানবজীবনের অপরিহার্য একটি বিষয়। সামাজিক জীব মানুষ বন্ধু ছাড়া থাকতে পারে না। বন্ধু ও বন্ধৃত্ব সমাজজীবনের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। মানুষ সামাজিক জীব। সুতরাং একজন সামাজিক জীবের পক্ষে কখনোই বন্ধুহীন থাকা সম্ভব নয়। এ ব্যাপারে আমাদের প্রত্যেকের সচেতন হওয়া দরকার।
বন্ধুত্ব মানবজীবনের অপরিহার্য একটি বিষয়। সামাজিক জীব মানুষ বন্ধু ছাড়া থাকতে পারে না। বন্ধু ও বন্ধৃত্ব সমাজজীবনের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। মানুষ সামাজিক জীব। সুতরাং একজন সামাজিক জীবের পক্ষে কখনোই বন্ধুহীন থাকা সম্ভব নয়। এ ব্যাপারে আমাদের প্রত্যেকের সচেতন হওয়া দরকার। মানবজীবেনর অন্য বিষয়বস্তুর মতো এ বিষয়টির ব্যাপারেও ইসলাম দিকনিদের্শনা দিয়েছে এবং ভালো, সৎ ও দ্বীনদ্বার বন্ধু নির্বাচন করার প্রতি গুরুত্বারোপ করেছে।
কে হবে আপনার বন্ধু? একজন মুমিন-মুসলমান হিসেবে বন্ধু নির্বাচন করা এবং বন্ধু হওয়ার জন্য কী কী গুণের প্রয়োজন, এসব ব্যাপারে ইসলাম আমাদের বেশ ভালো পরামর্শ দিয়েছে। বন্ধু গ্রহণ করার কথা উল্লেখ করে পবিত্র কোরানে আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ করেছেন, ‘মুমিনরা যেন অন্য মুমিনকে ছেড়ে কোনো কাফেরকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ না করে। যারা এমনটি করবে, আল্লাহ তাদের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক রাখবেন না।’ (আলে ইমরান-২৮)
আলোচ্য আয়াতটির মধ্যে যেমন বন্ধু নির্বাচনের নীতিমালা বর্ণিত হয়েছে, তেমনি ফুটে উঠেছে কাফেরকে বন্ধু হিসেবে নির্বাচন করার ভয়াবহ পরিণামের চিত্র। ভালো কিংবা মন্দ বন্ধু গ্রহণ করার পরিণাম বর্ণনা করতে গিয়ে রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘পৃথিবীতে যার সঙ্গে যার বন্ধুত্ব ও ভালোবাসা রয়েছে, পরকালে তাদের সঙ্গেই তার হাসর-বিচার হবে।’ বিখ্যাত দার্শনিক ইমাম গাজ্জালি (রহ.) বলেছেন, ‘সবাইকে বন্ধু নির্বাচন করা যাবে না; বরং তিনটি স্বভাব যার মাঝে বিদ্যমান, এমন লোককে বন্ধু নির্বাচন করা চাই। তিনটি গুণ হলো- এক. বন্ধুকে হতে হবে জ্ঞানী, বিচক্ষণ। দুই. বন্ধুর চরিত্র হতে হবে সুন্দর ও মাধুর্যময়। তিন. বন্ধুকে হতে হবে নেককার, পূণ্যবান।’
মুমিনের সব কাজই আমল-ইবাদত। কাউকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করাও একজন মুমিনের নাজাতের উসিলা হতে পারে। রাসুল (সা.) বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি আল্লাহর উদ্দেশে কাউকে ভালোবাসল, একমাত্র তার জন্যই কাউকে ঘৃণা করল, তারই সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য কাউকে দান করল এবং তা থেকে বিরত থাকল; তবে নিঃসন্দেহে সে নিজ ইমানকে পূর্ণতা দান করল।’ (আবু দাউদ)
বন্ধু নির্বাচনের ক্ষেত্রে জগদ্বিখ্যাত কবি আল্লামা শেখ সাদি (রহ.) বিখ্যাত উক্তি দিয়েছেন, ‘সৎ সঙ্গে স্বর্গবাস, অসৎ সঙ্গে সর্বনাশ।’ একজন ভালো বন্ধু যেমন মানুষের জীবনের গতি পাল্টে দিতে পারে, তেমনি একজন অসৎ বন্ধুর কারণে জীবন হয়ে যেতে পারে অন্ধকারাচ্ছন্ন। তাই বন্ধু নির্বাচনের ক্ষেত্রে ইসলাম প্রদর্শিত নির্দেশ অনুসরণ করতে হবে। এতে একদিকে যেমন নানাবিধ সমস্যা ও ভোগান্তি থেকে বেঁচে থাকা যাবে, অন্যদিকে আল্লাহ ও তাঁর রাসুল (সা.)-এর পথ অনুসরণ করার সাওয়াব পাওয়া যাবে। আল্লাহ আমাদের সবাইকে ভালো ও নেক বন্ধু নির্বাচনের তাওফিক দান করুন। আমিন।