বধূবেশে পালকিতে চড়ে ‘গুণিন’ বাড়িতে পরীমণি

11

বিয়ের শাড়িতে আবারও সেজেছেন পরীমণি। পালকিতে চড়ে বধূবেশে ‘গুণিন’ বাড়িতে হাজির হলেন তিনি। পালকি থেকে নেমে স্বামী অভিনেতা শরিফুল রাজের পাশে এসে বসেন। তাদের নতুন ছবি ‘গুণিন’-এর মুক্তিকে সামনে রেখে এমন অভিনব প্রচারণা। বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর শেফস টেবিলের কোর্টসাইডে ছিল চরকি প্রযোজিত গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ছবি গুণিনের উদ্বোধনী প্রদর্শনী। নীল হুরেজাহানের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের উপস্থিতিতে এ আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র নির্মাতা ও চরকির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা রেদওয়ান রনি, গুণিন সিনেমার পরিচালক গিয়াস উদ্দিন সেলিম, অভিনয়শিল্পী দিলারা জামান, সরকার অপু, ঝুনা চৌধুরী, ইরেশ যাকের, মুস্তাফা মনোয়ারসহ অন্যান্য কলাকুশলীরা। পরিচালক গিয়াস উদ্দিন সেলিম বলেন, কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হকের ছোটগল্প অবলম্বনে ‘গুণিন’ সিনেমা নির্মাণ করেছি। সিনেমাটির গল্প অসাধারণ।

আমি আর কোনো কিছু বলতে চাইছি না। আশা করছি দর্শক সিনেকপ্লেক্সগুলোতে গিয়ে নতুন একটা গল্প দেখতে পাবেন। মঞ্চে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে পরীমণি বলেন, ‘ও (রাজ) বলছিল, বর হয়ে এখানে আসব নাকি রমিজ হয়ে? আমার মিশ্র অনুভূতি হচ্ছে। কখনো রাজ-পরী হয়ে উঠছি, কখনো রমিজ-রাবেয়া হয়ে যাচ্ছি। এই কাজ করতে গিয়ে আমি আরেকজনের জীবনে জড়িয়ে গেছি। এই কাজ আমার জীবনে স্পেশাল হয়ে থাকবে।’ রাজ বলেন, ‘এখানে এসে আমি সারপ্রাইজ হয়ে গেছি। আমি যখন ছবিটায় যুক্ত হয়েছি, তখন একটা দুর্ঘটনায় পড়েছিলাম। সেলিম ভাই কাস্টিং বদলাননি, আমার জন্য অপেক্ষা করেছেন। রনি ভাইয়ের সঙ্গে আমার আইসক্রিম ছবি থেকে সম্পর্ক। আশা করি, আরও কাজ করব।’শেষে অতিথিদের সঙ্গে বসে পরিচালক, পরীমণি, রাজ দেখলেন গুণিন। অনুষ্ঠানের শুরুতে গান শোনান সন্ধি ও সাফিন। আজ শুক্রবার সারা দেশে মুক্তি পাচ্ছে গুণিন। প্রেক্ষাগৃহের যাত্রা শেষে চরকিতে সাবস্ক্রাইব করলে দেখা যাবে গুণিন।