বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কথা তুলে ধরতে হবে : মৎস্যজীবী লীগের পরিচিতি সভায় রুহুল আমিন

35

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ রুহুল আমিন বলেছেন, আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে সবাইকে সকল ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার উন্নয়নের কথা, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কথা সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরতে হবে।
শনিবার বাংলাদেশ আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার নবগঠিত কমিটির পরিচিতি ও আলোচনা সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে যখন মুক্তিযুদ্ধ চলছিল, তখন রাজাকার-আলবদররা আমাদের মা-বোনদেরকে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে তুলে দিয়েছিল। লক্ষ লক্ষ মা বোনের সম্ভ্রম, আর ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছিল। সেই স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে নস্যাৎ করে দিতে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হয়েছিল, সবচেয়ে নিরাপদ জায়গা হচ্ছে জেলখানা, সেই জেলখানায় জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করা হয়েছিল। কিন্তু স্বসাধীনতাবিরোধীরা তা পারেনি। বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশে ফিরে এদেশের মানুষকে সংগঠিত করেছেন। রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসে খুনিদের বিচার করেছেন। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ আজ মালোশিয়াকে ছাড়িয়ে যেত।
রুহুল আমিন বলেন, বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে আজ উন্নয়নের অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে আবারো শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। এজন্য যেই নৌকা পাবে, তার জন্যই সবাইকে কাজ করতে হবে।
জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট রবিউল ইসলাম। সভা সঞ্চালনা করেন জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আশফাকুর রহমান রাসেল।
সভায় আরো বক্তব্য দেনÑ সহসভাপতি মোহা. আকরাম আলী, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মনসুর আলী, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক শাম্মী আকতার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা মৎসজীবী লীগের সভাপতি মোহা. সেলিম রেজা ও সাধারণ সম্পাদক মো. মিয়ামুল হক, নাচোল উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি তোরিকুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মো. খোকন, গোমস্তাপুর উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি ফয়সাল আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাদিসহ অন্য নেতৃবৃন্দ।
শেষে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে সাংগঠনিক কার্যক্রম সুসংগঠিত করতে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।