বইমুখী করতে উদ্যোগ লেখক জোয়ার্দারের

42

‘হৃথিবী রথ’ নামের সাংস্কৃতিক সংগঠনটির সপ্তম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার জেলার সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নের বেতবাড়িয়া এলাকার একটি আমবাগানে এ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে পাবনা থেকে আগত লেখক ও কথাসাহিত্যিক লতিফ জোয়ার্দার বলেন- বই বিপণনের জন্য প্রতিটি জেলায় ব্যবস্থা করতে হবে। প্রতিটি জেলায় বইমেলার আয়োজন করতে হবে। আমরা যেন বইয়ের মধ্যে ফিরে আসতে পারি। প্রতিটি মানুষের বাড়িতে বই থাকলে আজ না হলেও কাল তিনি বইটি টেনে বের করে পড়বেন। আজ মোবাইল ফোনে আসক্ত হয়ে আমরা বইবিমুখ হয়ে যাচ্ছি। তাই এসব বইবিমুখকে বইয়ের মধ্যে ফিরিয়ে আনতেই আমার এ আন্দোলন।
‘আমিই লেখক, আমিই বই ফেরিওয়ালা’ স্লোগানে দেশের প্রতিটি জেলায় ঘুরে মানুষকে বইমুখী করতে এ আন্দোলন শুরু করেছেন লতিফ জোয়ার্দার। চাঁপাইনবাবগঞ্জ তাঁর দ্বিতীয়তম জেলা।
দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানটি আনন্দে মুখর ছিল বিভিন্ন কবি, সাহিত্যিক, সংগীতশিল্পী ও আবৃত্তিকারদের পদভারে। সংগঠনের আহ্বায়ক আনিফ রুবেদের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেনÑ লেখক গবেষক জাহাঙ্গীর সেলিম ও শহীদ সারোয়ার। ভাওয়ালি গান পরিবেশন করেন রফিকুল ইসলাম, লালন গান পরিবেশন করেন কাওসার রিপন ও আব্দুল মতিন। রবীন্দ্র সংগীত পরিবেশন করেন সেলিম রেজা। স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেনÑ কবি শহীদ সারওয়ার, রনি বর্মণ, মঈন শেখ, ওয়াহিদুর রহমান এবং ছড়া আবৃত্তি করেন শিশুসাহিত্যিক শরীয়তপুরের জহির টিয়া। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সদস্য সচিব আয়েস উদ্দিন।
আনিফ রুবেদ সংগঠন সম্পর্কে বলেন, সংগঠনের মূল কাজ পাঠচক্র ও বাউল গান বিশেষ করে লালনের গানের আসর পরিচালনা করা। এ পর্যন্ত ৮৫টি পাঠচক্র ও শতাধিক বাউল গানের আসর পরিচালনা করেছে হৃথিবী রথ। প্রতিবছর ২৫ ডিসেম্বর দিনব্যাপী এমন আয়োজনের মধ্য দিয়ে বর্ষপূর্তির আয়োজন করে আসছে। বাইরের জেলাগুলো থেকেও সংগঠনের শুভানুধ্যায়ী কবি-লেখকেরা অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে থাকেন। এবারো যোগ দিয়েছেন। অনুষ্ঠানে বাইরের জেলা থেকে আসা লেখকদের ফুল, বই ও উত্তরীয় উপহার দিয়ে সম্মাননা জানানো হয়।