ফেলে যাওয়া বৃদ্ধাকে দেখে এলেন জেলা প্রশাসক

19

আশি বছর বয়সী মর্জিনা বেগম (টুনি বেওয়া)কে দেখে এসেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খাঁন। রবিবার সকাল ১০টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ চক্ষু হাসপাল সংলগ্ন জেলাশহরের বালিগ্রামে বৃদ্ধা টুনি বেওয়ার মেয়ে নাসিমার বাড়িতে তিনি দেখা করতে যান।
এ সময় তিনি তার পাশে কিছুক্ষণ বসেন এবং মাথায় হাত বুলিয়ে দেন। এছাড়া বৃদ্ধার জন্য নিয়ে যাওয়া নতুন শাড়ি, ফলমুল, ওষুধ এবং নগদ অর্থও তুলে দেন তিনি।
জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খাঁন বলেনÑ মানবতার মা শেখ হাসিনা বাংলাদেশের কোনো মানুষ যাতে না খেয়ে কিংবা বিনা চিকিৎসায় মারা না যায় সে লক্ষে কাজ করে যাচ্ছেন। জেলা প্রশাসন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে মানবিক কারণে জেলা প্রশাসন এই বৃদ্ধ মায়ের পাশে দাঁড়িয়েছে এবং তার দায়-দায়িত্ব নিয়েছে।
জেলা প্রশাসক বলেনÑ যদি এই মায়ের ছেলেমেয়েদের অবহেলা বা ইচ্ছাকৃত গাফিলতির কারণে এ অমানবিক ঘটনা ঘটে থাকে তাহলে আইনানুসারে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেনÑ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দেবেন্দ্র নাথ উরাঁও, সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার ইফফাত জাহান, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য আব্দুল হাকিমসহ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ।
এর আগে গত শনিবার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জাকিউল ইসলাম জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে বৃদ্ধার বাড়িতে গিয়ে দেখা করে জেলা প্রশাসনের দায়িত্বভার নেয়ার কথা জানিয়েছিলেন।
উল্লেখ্য, গত শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ চক্ষু হাসপাতাল সংলগ্ন বালিগ্রাম এলাকায় খাটলিতে শুইয়ে আশি বছর বয়সী বৃদ্ধাকে রাস্তার ধারে ফেলে যান তার সন্তান।
এদিকে বৃদ্ধার দায়িত্বভার গ্রহণ করায় জেলা প্রশাসক তথা জেলা প্রশাসনকে সুশীল সমাজের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানানো অব্যাহত রয়েছে।