ফেইসবুক আংশিক ব্লকড রাশিয়ায়

8

সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুক “আংশিক” ব্লক করার ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। ইউক্রেইনে সামরিক অভিযান চালানোর একদিন পর বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই সামাজিক মাধ্যমটির বিরুদ্ধে রাশিয়ান সংবাদ সেন্সরের অভিযোগ তুলে এই ঘোষণা দিল পুতিন প্রশাসন। নিজ দেশে সংবাদ মাধ্যমের ওপরও চাপ বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে দেশটি। যেখানে কিয়েভে আঘাত করছে মিসাইল, সেখানে দেশটি তার ভাষায়, “মিথ্যা সংবাদ” ব্লক করার ঘোষণা দিয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে রয়টার্স। এর আগে মার্কিন সামাজিক মাধ্যম জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি রাশিয়া সরকার পরিচালিত চারটি সংবাদমাধ্যমের বিজ্ঞাপন বা এর প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে অর্থ আয়ের সকল উৎস বিশ্বব্যপী বন্ধ করার ঘোষণা দেয়। ফেইসবুকের নিরাপত্তা কৌশল প্রধান নাথানিয়েল গ্লেইশার বলেন, সিদ্ধান্তগুলোর বাস্তবায়ন এরইমধ্যে শুরু হয়েছে এবং সপ্তাহান্তজুড়ে চলতে থাকবে। ফেইসবুক তাদের প্ল্যাটফর্মে রাশিয়ার চারটি গণমাধ্যম- আরআইএ নিউজ এজেন্সি, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্ভেদজা টিভি এবং গেজেটা ডটআরইউ এবং লেনটা ডটআরইউ ওয়েবসাইটের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার দাবি উপেক্ষা করেছে বলে অভিযোগ তুলেছে ‎রাশিয়ার যোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা।‎

মেটার বৈশ্বিক গণযোগযোগ প্রধান নিক ক্লেইগ টুইটারে বলেন, “রাশিয়ার চারটি রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সংবাদমাধ্যমের ফেইসবুকে পোস্ট করা কনটেন্টের স্বাধীন ফ্যাক্ট চেকিং এবং লেবেল দেওয়া বন্ধ করার দাবি করেছে রুশ কর্তৃপক্ষ। আমরা সেটি প্রত্যাখ্যান করায় তারা আমাদের পরিষেবা সীমিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।‎ দীর্ঘদিন ধরেই ভুয়া তথ্যের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে চাপের মধ্যে রয়েছে ফেইসবুক এবং এর মালিক প্রতিষ্ঠান মেটা। প্রতিষ্ঠানটি শেয়ার করা তথ্যের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য রয়টার্সসহ তৃতীয় পক্ষীয় তথ্য যাচাইকারীদের অংশীদার হিসেবে নিয়ে কনটেন্টের সত্যতা মূল্যায়ন করে। মোটা দাগে, মিথ্যা, পরিবর্তিত এবং আংশিক মিথ্যা হিসেবে রেটিং করার কথা জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।‎ ক্লেইগ বলেন, সাধারণ রাশিয়ানরা মেটার অ্যাপগুলো ব্যবহার করছে – এর মধ্যে ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেঞ্জার এবং ফেইসবুকও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

‎দীর্ঘদিন ধরেই রাশিয়া ইন্টারনেট এবং বড় প্রযুক্তির উপর কঠোর নিয়ন্ত্রণ আরোপের চেষ্টা করছে। সমালোচকদের মতে, এতে দেশটিতে ব্যক্তি ও প্রাতিষ্ঠানিক স্বাধীনতা হুমকির মুখে পড়েছে। ক্রেমলিন যাদের প্রতিপক্ষ মনে করে, তাদের বিরুদ্ধে এটি বড় আকারে দমন প্রক্রিয়ার অংশ বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে রয়টার্স। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সিনেটর মার্ক ওয়ার্নার এক চিঠিতে ফেইসবুক, ইউটিউব এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানপ্রধানদের রাশিয়া এবং রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত কেউ যেন প্ল্যাটফর্মগুলোর অপব্যাবহার করতে না পারে সে বিষয়ে প্রতিষ্ঠানগুলোর দায়িত্ব রয়েছে বলে স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন।

মানবাধিকার লঙ্ঘন, মানবিক ও জরুরী সেবাদাতাদের বাধা দেওয়া বা ভুয়া তথ্য প্রচারে নিজেদের সেবার অপব্যবহার যেন না হয়, সেটি নিশ্চিত করা দায়িত্ব প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের রয়েছে। গত কয়েক দিন ধরে নীতিমালা লঙ্ঘনের কারণে শত শত ইউটিউব চ্যানেল এবং হাজার হাজার ভিডিও সরিয়ে নেওয়ার কথা বলেছে গুগল। টুইটার জানিয়েছে, রাশিয়া এবং ইউক্রেইনের ব্যবহারকারীরা আপাতত কোনও বিজ্ঞাপন দেখতে পাবেন না। জনসাধারণকে বিভ্রান্তি থেকে দূরে রাখার অংশ হিসেবে এটি করার কথা জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এর পাশাপাশি, টুইটার ব্যবহারকারীরা যে অ্যাকাউন্ট অনুসরণ করে না সেখান থেকে আসা টুইটও আর দেখতে পাবেন না।‎