ফু-ওয়াং ক্লাবে অভিযান: বিপুল পরিমাণ মদ জব্দ, ৩ জন আটক

19

রাজধানীর তেজগাঁও এলাকার ফু-ওয়াং ক্লাবের ক্যাশিয়ারসহ তিন কর্মচারীকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এর আগে রাতভর অভিযান চালিয়ে ক্লাবটি থেকে অবৈধভাবে রাখা বিপুল পরিমাণ বিদেশী মদ, বিয়ার, আমদানি নিষিদ্ধ সিগারেট ও সাত লাখ টাকা জব্দ করেছে সংস্থাটি।
বৃহস্পতিবার দুপুরে অভিযান শেষে র‌্যাবের পরিচালক (মিডিয়া) লেফটেন্যান্ট কর্নেল সারোয়ার বিন কাশেম এ তথ্য দেন। তিনি বলেন, ক্লাবটি থেকে প্রায় ১০ হাজার ক্যান বিদেশী বিয়ার, ২ হাজার বোতল বিদেশী মদ এবং বিপুল পরিমাণ অবৈধ সিগারেট জব্দ করা হয়েছে। এগুলোর বেশির ভাগই অনুমোদনহীন। সাধারণত নির্দিষ্ট কিছু ব্র্যান্ডের মদ ক্লাবে রাখার অনুমোদন থাকে। জব্দ করা মদ সেই তালিকায় নেই।
র‌্যাব পরিচালক বলেন, ফু-ওয়াং ক্লাবের মালিক শেখ মনিরুল ইসলাম। অভিযানের সময় তাকে পাওয়া যায়নি। তাকেও আটকের চেষ্টা চলছে। আটকরা হলেন, ক্লাবের ক্যাশিয়ার জাহিদ, স্টাফ জেবিয়ার জেরি ডিকস্তা ও চঞ্চল।
এর আগে সোমবার ফু-ওয়াং ক্লাবে অভিযান পরিচালনা করেছিল পুলিশ। ঘণ্টা দুয়েক অভিযান চালিয়ে ক্লাবটির বারে তেমন কোনো অসঙ্গতি পাওয়া যায়নি বলে জানায় তারা। অভিযান শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল্লা আল মামুন বলেছিলেন, ক্লাব কর্তৃপক্ষ বারে রাখা মদ বা লিকারের কাগজপত্র দেখিয়েছে। তাদের সব কাগজপত্র ঠিক রয়েছে। পুলিশের অভিযানের ঠিক দুদিন পর গত বুধবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে একই ক্লাবে অভিযানে নামে র‌্যাব-১। ১১ ঘণ্টাব্যাপী এ অভিযান শেষ হয় গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে।
অভিযান শেষে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সিনিয়র সহকারী পরিচালক (এএসপি) মিজানুর রহমান বলেন, ক্লাবটি সিলগালা করে দেয়া হবে। ক্লাবে অনুমোদনের চেয়ে তিনগুণ বেশি ছিল মদ ও বিয়ার। এছাড়া আমদানি নিষিদ্ধ বিপুল পরিমাণ সিগারেট পেয়েছি। মাদক বিক্রির সাত লাখ টাকাও জব্দ করা হয়েছে। তিনি এও বলেন, অভিযান থেকে আমরা তিনজনকে আটক করেছি। এই তিনজনসহ ক্লাবটির মালিকের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ও বিশেষ আইনে মামলা করা হবে।