ফসলের ধরন পরিবর্তন করতে হবে : প্রয়াসের এসইপি প্রকল্প পরিদর্শনকালে যুগ্ম সচিব

37

চাঁপাইনবাবগঞ্জে উন্নয়ন সংস্থা প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রজেক্ট (এসইপি)-এর আওতায় চলমান কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক সম্পর্ক বিভাগের যুগ্ম সচিব হাসান মারুফ। বুধবার সকাল থেকে তিনি পরিদর্শন শুরু করেন।
দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে বেলা ১১টা থেকে প্রকল্পের অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রয়াসের প্রধান কার্যালয়ের নকীব হোসেন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় যুগ্ম সচিব হাসান মারুফ বলেন- গোপালভোগ, ক্ষিরসাপাত, ল্যাংড়া ও ফজলির বাইরে যে আরো অনেক আম আছে তা আমরা ভুলতে বসেছি। জেলা প্রশাসনের ম্যাংগোপিডিয়া বইতে দেখলাম, ১০০টি আমের জাত লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। এসব জাতের মধ্য থেকে আমাদের রপ্তানিযোগ্য আমের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে।
হাসান মারুফ বলেন- বরেন্দ্র অঞ্চলে পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় টিউবওয়েলে পানি পাওয়া যাচ্ছে না। কাজেই শুধু ধান উৎপাদনের মধ্যে থাকলে চলবে না, আমাদের কম পানি ব্যবহারের মাধ্যমে অধিক ফসল উৎপাদন করতে হবে, চাষি যেন লাভবান হয় সেদিকে নজর দিতে হবে। ফসলের ধরন পরিবর্তন করতে হবে। তিনি বলেন- যে কাজগুলো চাষিকে শেখাবেন সে কাজগুলো যেন টেকসই হয়, চাষি যেন ভুলে না যায়। একদিন হয়তো এই প্রকল্প বন্ধ হয়ে যাবে কিন্তু চাষিকে যে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে তা থেকে যাবে। আমি মনে করি, আপনারা সে কাজটিই করছেন এবং করবেন।
প্রয়াস মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক হাসিব হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অবহিতকরণ সভায় আরো উপস্থিত ছিলেনÑ পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) প্রোগ্রাম অফিসার (এসইপি) জুলফিকার রহমান, প্রয়াসের পরিচালক মুখলেছুর রহমান, কনিষ্ঠ সহকারী পরিচালক মু. তাকিউর রহমানসহ প্রয়াসের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।
সভায় এসইপি প্রকল্পের কার্যক্রম পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে তুলে ধরেন এসইপি প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক মো. জহুরুল ইসলাম।
অবহিতকরণ সভা শেষে সদর উপজেলার ঝিলিম ইউনিয়নের নয়ানগরে অবস্থিত গোলাম মোস্তফার মডেল আমবাগান পরিদর্শন করেন যুগ্ম সচিব। এছাড়াও দুপুরে গোবরাতলা ইউনিয়নে অবস্থিত প্রয়াসের ইউনিট-১ এ ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের সাথে কথা বলেন এবং ক্ষুদ্র উদ্যোক্তার ভার্মিকম্পোস্ট উৎপাদন কেন্দ্র ঘুরে দেখেন। সেখানে তিনি প্রয়াস ফোক থিয়েটারের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। পরে প্রয়াসের পক্ষ থেকে তার হাতে শুভেচ্ছা স্মারক হিসেবে ক্রেস্ট ও নকশী কাঁথা তুলে দেয়া হয়।
শেষে রেডিও মহানন্দার বিশেষ সরাসরি অনুষ্ঠানে অংশ নেন। এ সময় যুগ্ম সচিব হাসান মারুফ বলেন- আপনাদের এসইপি প্রকল্পের মাধ্যমে এখানে যে চাষিদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে তাতে আমি মনে করি চাষিদের ক্ষমতায়ন করা হচ্ছে। আমি বলতে পারি, আমের উৎপাদন তো বাড়বেই সেই সঙ্গে আমটি মানসম্মত হবে। মানসম্মত আম তৈরি হলে বাজারজাত করার ক্ষেত্রে সরকার আপনাদের সর্বাত্মক সহায়তা করার চেষ্টা করবে। তিনি শ্রোতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের উদ্যোক্তা হবার সৎ সাহস ধারণ করতে হবে। আপনাদের সেই সাহসকে এগিয়ে নেবার জন্য প্রয়াসের মতো সংস্থা আছে, এসইপি প্রকল্প আছে, সরকারের কৃষি বিভাগ আছে। প্রথমে আপনাকে সাহস করতে হবে। এক্ষেত্রে যে বিষয়ে আপনার সামান্যতম জ্ঞান আছে এবং পারবেন বলে মনে হচ্ছে সেটি করতে হবে। এর সাথে আপনাকে মার্কেট সার্ভে করতে হবে। আপনি কাজ করতে চান; কিন্তু সেই কাজের ফলটা মার্কেটে চাহিদা আছে কিনা তা যাচাই করতে হবে। অর্থাৎ বিক্রয় করে লাভবান হতে পারবেন কিনা সেটা আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে।
হাসান মারুফ বলেন, যখন আমাদের শিক্ষিত তরুণ প্রজন্ম উদ্যোক্তা শ্রেণিভুক্ত হবেন, তখনই কিন্তু আমাদের সত্যিকারের পরিবর্তনটা আসবে। এখন নতুন প্রযুক্তি এসেছে, আমাদের নতুন জ্ঞান ধারণ করতে হবে এবং তরুণ উদ্যোক্তারা এক্ষেত্রে এগিয়ে আসবেন। শিক্ষিত মানুষ যদি এগিয়ে আসেন তাহলে আধুনিক কৃষিপ্রযুক্তি ও জ্ঞান নিয়ে কাজ করতে পারবেন, লাভবান হবেন। আর এভাবেই আমাদের কৃষিভিত্তিক শিল্প এগিয়ে যাবে। রেডিওর সরাসরি অনুষ্ঠানে হরিমোহন সরকারি স্কুলের দিনগুলোর স্মৃতিচারণ করেন হাসান মারুফ।
অনুষ্ঠান শেষে যুগ্ম সচিব হাসান মারুফের হাতে রেডিও মহানন্দার লোগো সংবলিত চাবির রিং ও মগ তুলে দেন রেডিও মহানন্দার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হাসিব হোসেন।