পড়শীর জীবন এখন গুগল নির্ভর

3

মুঠোফোন আর ল্যাপটপের দৌলতে কণ্ঠশিল্পী পড়শীর জীবনটাই হয়ে উঠেছে গুগল-নির্ভর! যেমন গত রোববার এক রেস্টুরেন্টে বন্ধু রিমনের সঙ্গে খেতে বসেছেন। কথায় কথায় পড়শীর হাত ধরলেন ইয়াশ। পড়শী দ্রুত গুগলে টাইপ করলো- রেস্টুরেন্টে কেউ হাত ধরলে কী করতে হয়! টিপস হিসেবে পান- থাপ্পড়! যথারীতি বন্ধু রিমনের গালে কশে থাপ্পড় মেরে দিলেন! গত ক’দিন এমনই এক গুগল-নির্ভর অদ্ভুত জীবনের মধ্যে আছেন পড়শী।

যার ফলে অনেক বিপাকেও পড়তে হচ্ছে তাকে। তবে এটি বাস্তবে নয়, তৃতীয়বারের মতো টিভি নাটকে অভিনয় করছেন কণ্ঠশিল্পী পড়শী। যাতে তাকে পাওয়া যাবে এমন চরিত্রেই। তার সঙ্গে আরও আছেন ‘পরাণ’-খ্যাত ইয়াশ রোহান। দু’জনকে নিয়ে ‘এখানে প্রেম শেখানো হয়’ নামের নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করছেন সাজিন আহমেদ বাবু। উত্তরায় গত রোববার শেষ হয় নাটকটির শেষ দিনের কাজ। যা প্রচার হবে আসছে ঈদে আরটিভিতে। কাজটি প্রসঙ্গে নির্মাতা বাবু বলেন, ‘এই চিত্রনাট্যটা আমি অনেক আনন্দ নিয়ে তৈরি করেছি।

কারণ, এই গল্পের মাধ্যমে বর্তমান প্রজন্মের বড় একটি অংশের বাস্তব পরিস্থিতি উঠে আসবে। গুগল আর সোশ্যাল মিডিয়া আমাদের নতুন প্রজন্মকে কোথায় নিয়ে যাচ্ছে, তার একটা আভাস থাকছে এতে।’ নাটকটিতে পড়শী অভিনয় করেছেন সুস্মিতা চরিত্রে আর ইয়াশ হচ্ছেন রিমন। যাতে দেখা যাবে, সুস্মিতা তার জীবনের প্রতিটি স্টেপে গুগল সার্চ ইঞ্জিনের সাহায্য নিয়ে চলেন। ফলে পরিবার, বন্ধু ও স্বজনদের সঙ্গে তৈরি হয় তার একরকম বিচ্ছিন্ন জীবন। যার ফলে গুগলের সাহায্যে তার জীবনে ঘটতে থাকে যত উদ্ভট ঘটনা। পড়শী এর আগে আরও দুটি নাটকে কাজ করেছেন। যার শুরুটা হয়েছিল চলতি বছর একই নির্মাতার ‘মারিয়া ওয়ান পিস’ নাটক দিয়ে। এরপর পড়শী ‘সাদি মোবারক’ নামে আরও একটি নাটকে কাজ করেছেন। পড়শীর অভিনয় প্রসঙ্গে নির্মাতা বাবু বলেন, ‘ওর সঙ্গে এমনিতেই একটা ভালো বন্ডিং হয়ে গেছে আমার। এর বাইরে ও গানে যেমন ট্যালেন্ট, অভিনয়েও তাই। তারচেয়ে বড় কথা অনেক লক্ষ্মী একটা মেয়ে। আর ইয়াশ রোহান সম্পর্কে তো সবাই জানেন। মোট মিলিয়ে আমরা কাজটি আরাম করেই করছি।’