প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য প্রতিহিংসার এবং সমাজে প্রতিনিয়ত দেয়াল তোলার বক্তব্য : রিজভী

73

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘ অধিবেশনে দেওয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যকে ‘প্রতিহিংসার বক্তব্য’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। জাতীয় সংকটে অন্য দেশের মতো সরকার ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। রোববার সকালে কক্সবাজারে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন। রুহুল কবির রিজভী বলেন, আপনারা দেখেছেন, যেকোনো উন্নত দেশে যখন একটি জাতীয় সংকট তৈরি হয়, তখন দল-মত নির্বিশেষে তাঁরা একযোগে কাজ করেন। কিন্তু আপনারা নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শুনেছেন। সেই বক্তব্য হচ্ছে তাঁর পুরোনো গৎবাঁধা বক্তব্য, প্রতিহিংসার বক্তব্য এবং সমাজে প্রতিনিয়ত দেয়াল তোলার বক্তব্য। এখানে বিএনপির পক্ষ থেকে ঐক্যকে তিনি তাচ্ছিল্য করেছেন, উপহাস করেছেন। কারণ, যারা একদলীয় সরকার গঠন করে দেশ পরিচালনা করতে চায়, যারা গণতন্ত্র, ভোটাধিকার, নির্বাচনকে প্রত্যাখ্যান করে… তাদের কাছ থেকে এ ধরনের কথাই তো স্বাভাবিক। রোহিঙ্গাদের কথা উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘এই মুহূর্তে প্রয়োজন ছিল সরকারের দায়িত্ব নেওয়ার। সেই মুহূর্তে তাঁরা তা নেয়নি; বরং নেতিবাচক কথা বলেছে। তাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি সংগঠনের প্রধান প্রতিহত করা হবে, তাদের বলেছে। সরকার নির্লিপ্ত থাকার কারণে নাফ নদীতে অনেক শিশু, অনেক নারী সেখানে ভেসে গেছে। ওইদিকে আপনার নিরাপত্তা বাহিনীর গুলি, আর এদিকে তাদের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। বাংলাদেশ সরকারের ভ্রান্তনীতির কারণেই আজকে অনেক রোহিঙ্গার সলিল সমাধি হয়েছে। বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব আরো বলেন, এখন দেখছেন আন্তর্জাতিক সেন্টিমেন্ট রোহিঙ্গাদের পক্ষে। এই যে মানবিক বিপর্যয়, এই মানবিক বিপর্যয়ের কারণে বিশ্বের মানুষের হৃদয় কাঁদছে। তাদের হৃদয়ের মধ্যে অশ্রু ঝরছে। এইরকম একটি দুর্যোগে তো ঐক্যবদ্ধভাবেই মোকাবিলা করার কথা। গণতান্ত্রিক সমাজের বৈশিষ্ট্য তো এটাই হওয়া উচিত, একটি সভ্য দেশের বৈশিষ্ট্য তো এটাই হওয়া উচিত। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, মৎস্যবিষয়ক সম্পাদক লুৎফর রহমান কাজল, জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরীসহ কেন্দ্রীয় ও জেলা শাখার নেতাকর্মীরা।