প্রথম ভাষণে যা বললেন নয়া ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস

4

ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ১০ নং ডাউনিং স্ট্রিটে দেওয়া প্রথম ভাষণে দেসবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন লিজ ট্রাস। চলমান ঝড় সামাল দিয়ে একসাথে কাজ করে অর্থনীতি পুনঃনির্মাণ করার প্রত্যাশা জানিয়েছেন তিনি। দেশের চলমান সমস্যা মোকাবেলাই সাহসী পরিকল্পনা প্রণয়নের প্রতিশ্রুতি দেন নবনিযুক্ত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর দশ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের বাইরে দাঁড়িয়ে মিজ ট্রাস বলেন, ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধের কারণে ব্রিটেন মারাত্মক এক বৈশ্বিক বাধার মুখোমুখী হয়েছে। কিন্তু এই ঝড় থেকে ব্রিটেন বেরিয়ে আসবে তিনি এ বিষয়ে তিনি নিশ্চিত।

কর কমানো, জ¦ালানির মূল্য বৃদ্ধি রোধে পদক্ষেপ এবং স্বাস্থ্যসেবায় সবার সুযোগ তৈরি করা তার সরকারের অগ্রাধিকার পাবে বলে জানান মিজ ট্রাস।ব্রিটেন স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের পক্ষে লড়ে যাবে বলেও প্রধানমন্ত্রী ট্রাস অঙ্গীকার করেন।নিজের পূর্বসুরি প্রশংসা করে ট্রাস বলেন, বরিস জনসন ব্রেক্সিট সম্পন্ন করেছেন। তিনি কোভিড-১৯ টিকার ব্যবস্থা করেছেন এবং রাশিয়ার আগ্রাসনের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছেন। ইতিহাস তাকে একজন অত্যন্ত ফলপ্রসূ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মনে রাখবে।প্রধানমন্ত্রী নিযুক্ত হবার পরপরই লিজ ট্রাসের সরকারের উপ প্রধানমন্ত্রী এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রী নিযুক্ত হন থেরেসা কফি।

এছাড়াও কোয়াসি কোয়ার্টেংকে চ্যান্সেলর, উইন্ডি মর্টনকে চিফ হুইপ, জেমস ক্লেভারিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ব্রাভারম্যানকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, বেন ওয়ালেসকে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী, ব্রান্ডন লেইসকে আইন মন্ত্রী নিযুক্ত করা হয়েছে।এর আগে, কনজারভেটিভ পার্টির নতুন নেতা নির্বাচিত হওয়ার পর ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের সঙ্গে দেখা করে আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেন ট্রাস। দেশটির ইতিহাসে তৃতীয় নারী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেয়া লিজ ট্রাস এতদিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছিলেন।