পুঁজিবাজারে দরপতন টানা তৃতীয় দিন

61

1

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবারও (২৫ এপ্রিল) দেশের পুঁজিবাজারে দরপতন হয়েছে। এদিন দিনভর সূচকের ওঠানামা শেষে ঢাকার বাজারে সূচক কমেছে ১৭ আর চট্টগ্রামে ২৩ পয়েন্ট। পাশাপাশি কমেছে বেশির ভাগ শেয়ারের দাম ও বাজার মূলধন। তবে কিছুটা বেড়েছে লেনদেন। এর ফলে টানা তিন কার্যদিবস দরপতন হলো। এর আগের সবশেষ বুধবার ২০ এপ্রিল উভয় বাজারের সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেদেন হয়। বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের নিষ্ক্রিয়তার পাশাপাশি সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থার সংকটের কারণে পুঁজিবাজারে দরপতন হচ্ছে। আর দরপতনের প্রধান কারণ পুঁজিবাজারে ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগের সময়সীমা বাড়ানো নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের টালবাহানা। সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববারের মতো সোমবার (২৫ এপ্রিল) দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ১৬ দশমকি ৬১ পয়েন্ট কমে চার হাজার ৩২১পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। ডিএস-৩০ সূচক ৪ দশমকি ৯৮ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৬৫৮ পয়েন্টে এবং ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ৩ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৫৩ পয়েন্টে। এদিন ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ৮১টির, কমেছে ১৪৪টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৬টি কোম্পানির শেয়ারের দাম। দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৩৩১ কোটি ২৮ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয়েছিলো ৩০৭ কোটি টাকা। যা আগের দিনের চেয়ে ২৩ কোটি টাকার বেশি। দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক আগের দিনের চেয়ে ২৩ পয়েন্ট কমে ৮ হাজার ৭৯পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। এদিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১৯ কোটি ৬৮ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২২৯টি কোম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ৬০টির, কমেছে ১৩৫টির ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৪টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।