পিএসজির ‘পরিশ্রমের ফসল’ ৮ সেকেন্ডে গোল

6

বাঁশিতে ফুঁ দিলেন রেফারি, শুরু হলো ম্যাচ। দর্শকরা নড়েচড়ে বসছেন কেবল। এরইমধ্যে বল জড়াল জালে! সময় লাগল মাত্র ৮ সেকেন্ড! লিলের বিপক্ষে কিলিয়ান এমবাপের এই গোল নিয়ে চলছে তুমুল আলোচনা। পিএসজির কোচ ক্রিস্তফ গালতিয়ে বললেন, হুট করে আসেনি এমন সাফল্য, করতে হয়েছে অনেক পরিশ্রম। লিগ ওয়ানের ম্যাচে রোববার দাপুটে পারফরম্যান্সে লিলকে তাদের মাঠেই ৭-১ গোলে উড়িয়ে দেয় পিএসজি। এমবাপে করেন হ্যাটট্রিক। নেইমার করেন জোড়া গোল, মেসি ও আশরাফ হাকিমি একটি করে। চ্যাম্পিয়নদের দাপটের শুরু কিক-অফ দিয়েই। মার্কো ভেরাত্তিকে বল বাড়ান নেইমার, ততক্ষণে লিলের ডি-বক্সের দিকে ছুট দেন এমবাপে। সতীর্থের কাছ থেকে বল ফিরে পেয়ে নেইমার দেন কাছেই থাকা মেসিকে।

আর্জেন্টাইন তারকা লিলের রক্ষণের ওপর দিয়ে চমৎকার থ্রু বলে খুঁজে নেন অরক্ষিত এমবাপেকে। প্রথম স্পর্শেই জাল খুঁজে নেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। ২০০৬-০৭ মৌসুম থেকে অপটা হিসাব রাখার পর ফরাসি লিগে দ্রুততম গোল এটি। যেকোনো প্রতিযোগিতায় পিএসজির দ্রুততম গোল। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে গালতিয়ে বলেন, শুরুতেই গোল করা নিয়ে ম্যাচের আগে অনেক কাজ করেছেন তারা। সাফল্য ধরা দেওয়ায় দলের সবাইকে ধন্যবাদ দিলেন তিনি। “৮ সেকেন্ডে গোল? বিষয়টি নিয়ে আমরা কাজ করেছি। আমরা বিভিন্ন লিগের ভিডিও ফুটেজ দেখেছি, এমনকি যুব লিগে আমাদের যুব দল থেকেও, গত মৌসুমে সালসবুর্কের বিপক্ষে তারা কিক-অফের পর গোল করেছিল। ম্যাচের আগের দিন আমরা এটি নিয়ে কথা বলেছি, ফুটেজ দেখেছি, অনুশীলনে এটির চর্চা করেছি।

৮ সেকেন্ডে গোল করার মতো কাক্সিক্ষত ফল মিললে খুবই ভালো লাগে।” “এমন কিছুর চেষ্টা করার সাহস দেখানোর এবং সফল হওয়ার জন্য আমার স্টাফ ও খেলোয়াড়দের অভিনন্দন। গোলটি প্রতিপক্ষকে নাড়িয়ে দিয়েছিল, তাদের মতো দলের বিপক্ষে দল এমন দুর্দান্ত খেললে অবশ্যই কাজ অনেক সহজ হয়ে যায়।” প্রথমার্ধেই চার গোল করে ম্যাচে চালকের আসনে বসে যায় পিএসজি। এরপরও ম্যাচ জুড়ে খেলোয়াড়রা যেভাবে তাদের লড়াকু মনোভাব ধরে রাখেন, তাতে খুশি কোচ। “সন্ধ্যাটা আমাদের দারুণ কাটল। আমি খুবই খুশি, অবশ্যই সেটা জয়ের জন্য, তবে ব্যক্তিগত ও দলীয় পারফরম্যান্সের জন্যও। খেলোয়াড়রা উপভোগ করেছে। অবশ্যই এটি ¯্রফে একটি ম্যাচ। কিন্তু খেলোয়াড়দের মধ্যে বোঝাপড়া, সম্পর্ক, দলের হয়ে খেলার যে আকাক্সক্ষা, সেসবের প্রকাশ ছিল।”