পাকিস্তানে বাড়ি ধসে ও পানিতে ডুবে ৬ জনের মৃত্যু

7

পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের রাজধানী কোয়েটা ও সংলগ্ন এলাকায় ভারি বৃষ্টিপাতের সময় বাড়ি ধসে ও পানিতে ডুবে তিন শিশুসহ ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। গত সোমবার বৃষ্টিজনিত বেশ কয়েকটি ঘটনায় প্রদেশটিতে আরও বেশ কয়েকজন আহত হয়।সংবাদমাধ্যম দ্য ডন জানিয়েছে, এদিন বিকেল থেকে বেলুচিস্তানের বিভিন্ন এলাকায় ঝড়ো বাতাসের সঙ্গে ভারি বৃষ্টি শুরু হয়। এ সময় হড়কা বানে পাঁচ ব্যক্তি ভেসে যায়। বজ্রঝড় ও প্রবল বৃষ্টিতে কোয়েটায় কয়েক ডজন মাটির বাড়ি ধসে পড়ে, গাছ ও বৈদ্যুতিক খুঁটিও উপড়ে যায়। কোয়েটা শহর ও আশপাশের অঞ্চলের বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ হয়ে যায়, এতে পুরো এলাকা অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়।

নিকটবর্তী পবর্তগুলো থেকে নেমে আসা ঢল যাযাবরদের অস্থায়ী আশ্রয়গুলো ভাসিয়ে নিয়ে যায়। পানি কোয়েটার নিচু এলাকাগুলোর বাড়িঘরে প্রবেশ করায় সেগুলো ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়, মাটির তৈরি বহু বাড়ি ধসে পড়ে। প্রদেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কোয়েটার সারিয়াব এলাকায় একটি বাড়ি ধসে চার জনের মৃত্যু হয়েছে। এখানে মৃতদের মধ্যে দুই নারী ও ছোট একটি শিশু আছে। ইস্টার্ন বাইপাস এলাকায় আরেক শিশু ডুবে মারা গেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, গত সোমবার রাতে সারিয়াব এলাকায় একটি বাড়ির দেয়াল ধসে পাঁচ নারী আহত হন। সারিয়াব মিল এলাকায় বন্যার পানিতে আটকা পড়া একটি গাড়ি উদ্ধার করতে গিয়ে চার ব্যক্তি ভেসে যায়। অস্থায়ী আশ্রয় হারিয়ে ও মাটির বাড়ি ধসে পড়ে বহু মানুষ আশ্রয়হারা হয়ে পড়েছেন বলে দ্য ডন জানিয়েছে। প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, প্রদেশটির বোলান জেলার মুচ এলাকায় একটি নালা পেরোতে গিয়ে পাঁচ খনি শ্রমিক ভেসে যায়। নিখোঁজ থাকা এ শ্রমিকদের খোঁজে তল্লাশি অভিযান শুরু করেছেন উদ্ধারকর্মীরা।