পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ব্যাপক পাল্টা হামলা ভারতীয় সেনাবাহিনীর

44

gourbangla logoজম্মু ও কাশ্মিরের নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ব্যাপক হামলা শুরু করেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।নিহত এক সেনার অঙ্গহানিসহ তিন সেনাকে হত্যার পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে এ হামলা শুরু করা হয়েছে বলে দাবি ভারতীয় সেনাবাহিনীর। এর আগে ওই তিন সেনা নিহতের চরম প্রতিশোধ নেওয়ার অঙ্গীকার করেছিল বাহিনীটি। গতকাল বুধবারের এই হামলায় পাকিস্তানি সেনা চৌকিগুলো লক্ষ্য করে ভারতীয় বাহিনী ১২০ মিলিমিটারের ভারী মর্টারের গোলা নিক্ষেপ ও মেশিনগান থেকে গুলি করছে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। পুঞ্চ, রাজৌরি, কেল ও মাচিলসহ জম্মু ও কাশ্মিরের নিয়ন্ত্রণ রেখার (ভারত-পাকিস্তান সীমান্ত) পুরোটাই এখন উত্তপ্ত অঞ্চলে পরিণত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী। উপর্যুপরি হামলার ঘটনায় স্থানীয়ভাবে জবাব দেওয়া আর যথেষ্ট নয় বলে ইঙ্গিত দিয়েছে বাহিনীটি। নিহত সেনাদের অঙ্গহানি গ্রহণযোগ্য নয় এবং এক্ষেত্রে ভারতের প্রতিক্রিয়া খুব দ্রুত ও ব্যাপক হবে, হামলার মাধ্যমে এই বার্তা সরাসরি দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। মঙ্গলবার মাচিল এলাকায় সীমান্ত অতিক্রম করে অনুপ্রবেশ করা পাকিস্তানি কমান্ডোদের হামলায় তিন ভারতীয় সেনা নিহত হন। নিহত সেনাদের একজনের শিরñেদ করে পাকিস্তানিরা। এর মাত্র তিন সপ্তাহ আগে প্রায় একই এলাকায় অপর এক ভারতীয় সেনার শিরñেদ করেছিল পাকিস্তানি অনুপ্রবেশকারীরা। উত্তর কাশ্মিরের মাচিল সেক্টরে টহল দেওয়ার সময় পাকিস্তান সেনাবাহিনীর বর্ডার অ্যাকশন টিম ওই তিন সেনার ওপর চোরাগোপ্তা হামলা চালায় বলে দাবি ভারতের। এর প্রতিক্রিয়ায় ভারতীয় সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে বলেছিল, “কাপুরুষোচিত এই ঘটনার চরম প্রতিশোধ নেওয়া হবে। কিন্তু এই ঘটনা অস্বীকার করে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদনগুলোকে ‘মিথ্যা’ ও ‘ভিত্তিহীন’ বলে দাবি করেছে পাকিস্তান। মাচিল সেক্টরে ভারতীয় সীমান্ত চৌকিগুলোর অবস্থান সীমান্তের খুব কাছে এবং এলাকাটি ঘন বনে আচ্ছাদিত বন্ধুর এলাকা হওয়ায় এই এলাকায় অনুপ্রবেশ অনেকটা সুবিধাজনক। ফলে এখানে বাববার অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটে। গত ২৯ সেপ্টেম্বর পাকিস্তান সীমান্তের ভেতরে ভারতীয় বাহিনীর ‘সার্জিকাল স্ট্রাইকের’ পর থেকে জম্মু-কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণরেখা এবং আন্তর্জাতিক সীমান্তে দুদেশের পাল্টাপল্টি হামলায় ১৮ জন ভারতীয় সেনা ও ২৯ জন পাকিস্তানি সেনা নিহত হয়েছে বলে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।