পর্তুগালে পৃথিবীর সর্ববৃহৎ প্রযুক্তি সম্মেলন ‘ওয়েব সামিট’ শুরু

7

পর্তুগালে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছে পৃথিবীর সর্ববৃহৎ প্রযুক্তি সম্মেলন ‘ওয়েব সামিট’। গত মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বিকেল ৪টায় রাজধানী লিসবনের আলটিস এরিনার ফেইরা ইন্টারন্যাশনাল দ্য লিসবোয়াতে এই সম্মেলনে উদ্বোধন করা হয়। বিজনেস পোস্টের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।প্রতিবেদনে বলা হয়, এই প্রযুক্তি সম্মেলন বুধবার থেকে আগামী শুক্রবার পর্যন্ত মোট চারদিন চলবে। ওয়েব সামিটের প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, এবারের সম্মেলনে ৭০ হাজারের বেশি মানুষ অংশগ্রহণ করবেন। রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করে অংশ নেওয়া প্রায় অর্ধেকই নারী। সম্মেলনে প্রতিনিধিত্ব করছে ১৬০টি দেশ। বিভিন্ন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের বিশেষ দায়িত্বে নিয়োজিত ৯০০ এর বেশি বিশেষ বক্তারা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেবেন বলে জানা গেছে।

এছাড়া বিখ্যাত অ্যাপলের ভিপি লিজা জ্যাকসন এবং বিন্যান্সের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী ছাংপেং ঝাও এখানে বক্তব্য দেবেন বলে জানিয়েছে বিজনেস পোস্ট। এই সম্মেলনে প্রত্যক্ষভাবে ২ হাজার নতুন উদ্যোক্তা অংশ নিয়েছেন। এছাড়াও প্রযুক্তি ক্ষেত্রের ১ হাজার বিনিয়োগকারী, বিশ্বব্যাপী তিনশত অংশীদার এবং ২ হাজার পাঁচশত মিডিয়া উপস্থিত থাকবে এখানে।পর্তুগালের প্রধানমন্ত্রী এন্টোনিয় কোস্তা, জর্ডানের রানী, আল আব্দুল্লাহসহ মন্তে কার্লো, এমাজন, এয়ার বিএনবি, পেট্রোনাস, অথর, মেটা, কম্ভিনেটর, সন্ডবক্স, রিভোল্টের মতো নামীদামী প্রতিষ্ঠানের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান কর্মকর্তারা এই সম্মেলনের অতিথিদের তালিকায় রয়েছেন।

ওয়েব সামিট পর্তুগালের লিসবনে অনুষ্ঠিত একটি বার্ষিক প্রযুক্তি সম্মেলন। ২০০৯ সালে প্যাডি কসগ্রেভ, ডেভিড কেলি এবং ডায়ার হিকি ওয়েব সামিট প্রতিষ্ঠা করেন। ওয়েব সামিট মূলত ২০১৬ সাল পর্যন্ত আয়ারল্যান্ডের ডাবলিনে অনুষ্ঠিত হয়েছিল, তারপর থেকে এটি স্থায়ীভাবে লিসবনে স্থানান্তরিত করা হয়।ওয়েব সামিটের প্রধান বিষয়বস্তু হলো ইন্টারনেট প্রযুক্তি, উদীয়মান প্রযুক্তি এবং প্রযুক্তিতে পুঁজিবাদী উদ্যোগ নিয়ে আলোচনা করা ও প্রযুক্তি ক্ষেত্র সমৃদ্ধ করা। এছাড়াও অংশগ্রহণকারীরা বৈশ্বিক উচ্চ প্রযুক্তি শিল্পের সমস্ত স্তর এবং সেক্টরের প্রতিনিধিত্ব করেন এবং সম্ভাবনা ও প্রভাবকে তুলে ধরেন।