পঞ্চগড়ে মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.৪ ডিগ্রি

4

উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে কমছে রাতের তাপমাত্রা। শীতের আমেজ বৃদ্ধি পাচ্ছে প্রতিনিয়ত। দিনের আবহাওয়া বেশ গরম থাকলেও রাত গভীর হলে শুরু হয় শীতের তীব্রতা। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় সর্বনিম্ন ১২ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করে তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিস। গত বুধবার যা ছিল ১৩ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
এদিকে, দিনের তাপমাত্রা বেশি থাকায় শীতের দুর্ভোগ এখনো শুরু হয়নি। বর্তমানে জেলায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৯ থেকে ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ওঠানামা করছে।
পঞ্চগড়ে সাধারণত নভেম্বরের শেষ থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত শীতের তীব্রতা অনুভূত হয়। জেলায় শীতের মৌসুমজুড়ে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকে। এবারো প্রায় প্রতিদিনই এখানে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হচ্ছে। তবে সকাল ৮টার মধ্যেই ঝলমলে রোদের দেখা মিলছে।
তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রাসেল শাহ বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় সর্বনি¤œ ১২ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। গত বুধবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। প্রতিদিন তাপমাত্রা কমছে এবং শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।
এদিকে, আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে যা আরো ঘনীভূত হতে পারে। তবে এটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেবে কি না বা এর গতিপথ কোন দিকে, সে বিষয়ে কিছু জানায়নি অধিদপ্তর।
আবহাওয়াবিদ মো. শাহীনুল ইসলাম জানান, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এটি ঘনীভূত হতে পারে। উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার এবং তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।
তবে আবহাওয়ার পূর্বাভাস মডেল সূত্রে জানা গেছে, লঘুচাপটি আরো শক্তিশালী হয়ে আগামী ২১/২২ নভেম্বরের দিকে ভারতের বিশাখাপতœম উপকূল অতিক্রম করতে পারে। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাস তুলে ধরে তিনি বলেন, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। ভোরের দিকে দেশের কোথাও কোথাও হালকা কুয়াশা পড়তে পারে।
এ সময়ে সারাদেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে জানিয়ে তিনি বলেন, আগামী তিনদিনে সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে।