নিয়ামতপুরে যৌতুকের কারণে নির্যাতনের শিকার গৃহবধু

65

নওগাঁর নিয়ামতপুরে এক গৃহবধু স্বামীর দ্বারা যৌতুকের কারণে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে গৃহবধুর পিতা বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
থানায় দায়ের করা অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বাহাদুরপুর ইউপির শ্যামপুর গ্রামের জিন্নাত মন্ডলের মেয়ে শিরিনা আক্তারের (২৮) ১৫ বছর পূর্বে একই ইউপির আদমপুর চৌবাড়িয়াপাড়ার আবুল কাশেমের ছেলে এনামুল হক বাবু (৩০)’র সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় শিরিনা আক্তারের বাবা জিন্নাত মন্ডল নগদ ৩০ হাজার টাকা, ঘরের বিভিন্ন আসবাবপত্র ও স্বর্ণালংকার যৌতুক হিসেবে এনামুল হক বাবুকে দিয়েছিলেন। তারপরেও এনামুল হক বাবু ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা বিভিন্ন সময়ে যৌতুকের দাবি তুলে ও সংসারের সামান্য কিছু হলেও মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন চালায় শিরিনা আক্তারের উপর।
গত ১৫ জানুয়ারি রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় মোবাইল ফোনকে কেন্দ্র করে এনামুল হক বাবু স্ত্রী শিরিনা আক্তারকে বাঁশ দিয়ে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় বেধড়ক মারপিট করে অজ্ঞান করে দেয়। প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে তাকে রক্ষা করে। পরদিন সকালে খবর পেয়ে শিরিনা আক্তারের বাবা তাকে খড়িবাড়ী বাজারে অবস্থিত মাতৃ ক্লিনিকে ভর্তি করেন। মাতৃ ক্লিনিকের দায়িত্ব প্রাপ্ত ডাক্তার রেবতী অপারগতা প্রকাশ করে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করার পরামর্শ দেন। গত ১৭ জানুয়ারি শিরিনাকে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে শিরিনা প্রচন্ড যন্ত্রণায় হাসপাতালের বেডে শুয়ে কাতরাচ্ছেন।