নির্বাচকদের নজরে নাসির

6

বিপিএলে বিদেশিদের সঙ্গে সমান তালে লড়াই করছেন স্থানীয় ক্রিকেটাররা। শীর্ষ পাঁচ সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকাতে আছেন তিন বাংলাদেশি। এই তিন জনের মধ্য অন্যতম নাসির হোসেন। উশৃঙ্খল জীবনযাপন, ইনজুরি, অফফর্ম- সবকিছু মিলিয়ে নাসির ছিলেন অন্ধকারে। বিপিএল তাকে আলোতে নিয়ে আসলো। ঢাকা ডমিনেটরস দল হিসেবে ভালো না করলেও অধিনায়ক নাসিরের সময়টা যাচ্ছে দুর্দান্ত। ৬ ম্যাচে ২৬৯ রান করে শীর্ষ রান সংগ্রাহকের তালিকার দুই নম্বরে এই স্পিনিং অলরাউন্ডার।

নাসিরের এমন পারফরম্যান্সের পর নির্বাচকরাও তাকে নজরে রাখছেন। ৩৬*, ৪৪, ৩০, ৩৯, ৬৬* ও ৫৪* বিপিএলে নাসিরের রান। প্রতি ম্যাচে নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার মিশনে নামা নাসির বেশ ভালোভাবেই সফল হচ্ছেন। ১৩১.২১ স্ট্রাইক রেটে ৮৯.৬৬ গড়ে নাসির করেছেন ২৬৯ রান। শুধু ব্যাট হাতেই নন, বল হাতে নিয়েছেন ৯ উইকেট। লম্বা সময় পর খেলতে নেমে নাসিরের এমন পারফরম্যান্সে মুগ্ধ প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেছেন, ‘অনেক দিন পর এসে খেলছে নাসির। ভালো খেলছে। তাকে আগে খেলতে দিন। স্থির হতে হবে।

অনেকদিন পর এসে পারফর্ম করা একটা বিরাট ব্যাপার একজন খেলোয়াড়ের জন্য। কামব্যাক করেছে। ধারাবাহিকভাবে এই প্রক্রিয়ায় থাকলে অবশ্যই বিবেচনা করা হবে।’ নাসিরের পাশাপাশি সাকিব-তামিমরাও ভালো করছেন। সাকিব ব্যাট হাতে দুর্দান্ত। এখন পর্যন্ত শীর্ষ রান সংগ্রাহক। ৬ ম্যাচে সাকিবের রান ২৭৫। তামিম শুরুর তিন ম্যাচে রান না পেলেও শেষ দুই ম্যাচে পেয়েছেন। ৫ ম্যাচে তার রান ১৫৩। সাকিব-তামিম রান পাওয়াতে দারুণ খুশি নান্নু বললেন, ‘সেরা খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স দেখতে সব সময় ভালো লাগে। আমি উপভোগ করছি, যথেষ্ট ভালো লাগছে।’ শুধু শীর্ষ ব্যাটারদের পারফরম্যান্স নয়। চট্টগ্রাম পর্ব শেষে বিপিএলের ব্যাট-বলের লড়াইয়ে খুশি প্রধান নির্বাচক। তিনি বলেন, ‘এখন পর্যন্ত ভালো ক্রিকেট হয়েছে। এক্সসাইটিং ক্রিকেট! বেশ কিছু পারফর্মার আমরা দেখেছি। অনেকজনই আছে, সব বিভাগেই দেখা হচ্ছে।’