‘নিপুণকে সত্যিকার যৌনকর্মী ভেবেছিলেন খদ্দের’

23

নিপুণকে চলচ্চিত্রের শুটিংয়ের জন্য যেতে হয়েছিল রাজবাড়ী জেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে। চলচ্চিত্রে নিপুণের চরিত্র একজন যৌনকর্মী। শুটিং শুরুর আগ মুহূর্তে নিপুণ যৌনকর্মীর সাজ নিলেন। এরপর সেখানে কয়েকজন প্রকৃত যৌনকর্মীর সঙ্গে দাঁড়িয়েছিলেন। এ সময় নিপুণকে সত্যি সত্যি যৌনকর্মী ভেবে স্থানীয় কিছু খদ্দের তার দিকে এগিয়ে আসে। এমন অনেক ছোট ছোট গল্প রয়েছে ‘বীরত্ব’ চলচ্চিত্রের নেপথ্যে। মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর বিএফডিসির জহির রায়হান প্রজেকশন মিলনায়তনে ছবিটির মুক্তি উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়। সেখানে এমন কিছু নেপথ্যের গল্প তুলে ধরেন অভিনেতা মামুনুন ইমন।

বেশ মজার ছলে গল্পটি বলতে গিয়ে ইমন বলছিলেন, ‘নিপুণ যৌনকর্মীর সাজ নিয়েছিলেন। সঙ্গে ছিলেন আরেক অভিনেত্রী জেসমিন। নিপুণকে খুবই সুন্দর লাগছিল। শুটিংয়ের জন্য নিপুণ সেখানের কয়েকজন প্রকৃত যৌনকর্মীর সঙ্গে দাঁড়ান। যেভাবে ওখানে মেয়েরা দাঁড়িয়ে থাকেন। ’ইমন বলেন, ‘নিপুণকে দেখে কয়েকজন খদ্দের সত্যিই এগিয়ে আসেন। তারা নিপুণকে চায়…’ মাইক্রোফোনের সামনে বলতে বলতেই হাসছিলেন ইমন। মঞ্চে নিপুণ নিজেও হাসছিলেন। হাসছিলেন ইন্তেখাব দিনার, নাসিম, সোহানুর রহমান সোহান, কচি খন্দকার, মনিরা মিঠু। ইমন আরেকটি গল্প শুরু করেন।

বলছিলেন, শুটিংয়ে অভিনেত্রী নিশাত নাওয়ার সালওয়াকে ইঞ্জেকশন দেওয়ার অভিনয় রয়েছে। সেখানে নার্স অভিনয় করতে গিয়ে সালওয়াকে সত্যিকার ইঞ্জেকশন দিয়ে ফেলেন। এরপর অনেকক্ষণ শুটিং বন্ধ থাকে। মামুনুন ইমন এমন অনেক গল্প শোনালেন। শুধু গল্পই নয়, সিনেমার গল্পের ওপরও তার আত্মবিশ্বাসের কথা শোনালেন। ‘বীরত্ব’ চলচ্চিত্র যারা দেখবেন তারা মুগ্ধ হবেন বলে তার বিশ্বাস। ইমন ফেসবুকেও পোস্ট দিয়ে লিখেছেন, লুৎফা যৌনপল্লীর সবচেয়ে সুন্দরী মেয়ে। সবাই তাকে কাছে পেতে চায়। আগামীকাল শুক্রবার ‘বীরত্ব’ ছবি মুক্তি পাচ্ছে আপনার পাশের প্রেক্ষাগৃহে। আগামীকাল শুক্রবার ৩৩ হলে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ‘বীরত্ব’। তরুণ নির্মাতা সাইদুল ইসলাম রানা পরিচালিত প্রথম সিনেমা এটি। ছবিতে ইমন ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী নিপুণ, ইন্তেখাব দিনার, নাসিম, মনিরা মিঠু, নিশাত নাওয়ার সালওয়া।