দৈনিক গৌড় বাংলা

রবিবার, ১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

নিজেদের সামর্থ্য দেখাতে মুখিয়ে উরুগুয়ে

মূল লক্ষ্য তো অবশ্যই শিরোপা জয়। তবে এর বাইরেও অনেক কিছু থাকে। এবারের কোপা আমেরিকায় সেই ব্যাপারগুলো যথেষ্ট গুরুত্ব পাচ্ছে মার্সেলো বিয়েলসার কাছে। উরুগুয়ের অভিজ্ঞ এই বলেছেন, এবারের কোপা আমেরিকাকে তিনি নিজেদের সামর্থ্য দেখানোর মঞ্চ হিসেবে দেখছেন। দুর্দান্ত ছন্দ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে লাতিন আমেরিকার ফুটবল শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে অংশ নিচ্ছে উরুগুয়ে। বিশ্বকাপের বাছাইয়ে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনাকে হারানো দলটি মাঠে নামবে সোমবার, পানামার বিপক্ষে। কোপা আমেরিকার শিরোপা ১৫বার জিতেছে উরুগুয়ে। সবশেষটি সেই ২০১১ সালে। গত আসরে ট্রফিটি ঘরে নিয়ে তাদের রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছে আর্জেন্টিনা। এবার শিরোপাটি পুনরুদ্ধারের লড়াইয়ে নিজেদের সামর্থ্য ফুটবল বিশ্বকে দেখাতে উন্মুখ হয়ে আছেন গত বছর উরুগুয়ের দায়িত্ব নেওয়া বিয়েলসা। “এটা নতুন অধ্যায় এবং নিজেদের সামর্থ্যরে মাত্রা দেখানোর জন্য আমরা উন্মুখ হয়ে আছি। আমি সবসময় মনে করি, আগে থেকে অনুমান করা বা বলার চেয়ে আপনি কী করতে চান সেটা দেখানো ভালো। এই ধরনের প্রতিযোগিতা একটি পরীক্ষা, যেখানে নিশ্চিত হয়ে যায় প্রতিটি খেলোয়াড় উরুগুয়ের প্রতিনিধিত্ব করার যোগ্য কিনা বা দলে জায়গা পাবে কিনা।” অভিজ্ঞ ও তরুণদের মিশেলে এবারের কোপা আমেরিকা স্কোয়াড সাজিয়েছেন ‘কোচদের কোচ’ হিসেবে পরিচিত বিয়েলসা। আর্জেন্টাইন এই কোচ দলটি নিয়ে বেশ আত্মবিশ্বাসী। “উরুগুয়ে দলে অভিজ্ঞতার একটি দৃঢ় ভিত্তি রয়েছে এবং তরুণ খেলোয়াড়দের যুক্ত করা হয়েছে যারা তাদের নিজস্ব পজিশনে জায়গা পাওয়ার যোগ্য।” তবে অতি আত্মবিশ্বাস যে বিপদ ডেকে আনে, ভালো করেই জানেন ‘এল লোকো’ বা ‘পাগলাটে’ নামে পরিচিত বিয়েলসা। প্রতিটি প্রতিপক্ষকে সম্মান দেখিয়ে একটি করে ম্যাচ ধরে টুর্নামেন্টে এগোতে চান তিনি। “প্রতিযোগিতার এই পর্যায়ে, প্রস্তুতির সময় এবং পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ম্যাচের পরিকল্পনা করার জন্য সব দল তাদের প্রতিপক্ষ সম্পর্কে যথেষ্ট জানে। টুর্নামেন্টের মধ্যে দলগুলো এগিয়ে যাচ্ছে, উন্নতি করছে এবং ধাপগুলো পার করছে, কাউকে দুর্বল প্রতিপক্ষ ভাবা সম্ভব নয়। সেরা দলগুলোর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পেরে আমরা খুশি।”

About The Author