নিউ জিল্যান্ডের স্কোয়াডে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিয়ার্স

8

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ শুরুর এক দিন আগে নিউ জিল্যান্ড স্কোয়াডে যোগ দিচ্ছেন বেন সিয়ার্স। জরুরি তলব করে দলে যুক্ত করা হচ্ছে ২৫ বছর বয়সী পেসারকে। মূলত কাইল জেমিসনের ‘কাভার’ হিসেবে দলে ডাকা হয়েছে সিয়ার্সকে। বাংলাদেশে টেস্ট সিরিজ শেষ করে গত মঙ্গলবার দেশে ফিরেছে নিউ জিল্যান্ড দল। এখানে দুই টেস্টেই খেলে জেমিসন ওয়ানডে দলের সঙ্গে ডানেডিনে যোগ দিয়েছেন বৃহস্পতিবার। বাংলাদেশ থেকেই কিছুটা চোট বয়ে নিয়ে গেছেন তিনি। ৬ ফুট ৮ ইঞ্চি উচ্চতার এই পেসারের চোট অবশ্য গুরুতর কিছু নয় বলেই জানালেন নিউ জিল্যান্ডের কোচ গ্যারি স্টেডি। তবে তাকে নিয়ে কোনো ঝুঁকি নিতে চান না তারা।

“কাইলকে (জেমিসনকে) নিয়ে আমরা সতর্ক পদক্ষেপ নিতে চাচ্ছি। আমরা ওকে নিয়ে তাড়াহুড়ো করতে চাই না বা দ্রুত মাঠে নামিয়ে দিতে চাই না, বিশেষ করে ঘরোয়া গ্রীষ্মের এই শুরুর দিকেই। প্রয়োজন মনে করলে তাকে খেলানো হতেও পারে, তবে কোনো অপ্রয়োজনীয় ঝুঁকি নিতে চাই না বলেই প্রথম ম্যাচের জন্য বেনকে (সিয়ার্স) ডাকা হয়েছে।” “বেন (সিয়ার্স) আমাদের দলীয় আবহের সঙ্গে অভ্যস্ত এবং (ওয়েলিংটন) ফায়ারবার্ডসের হয়ে তাকে পুরো ফিটনেসে ফিরতে দেখাটা দারুণ।” ফিটনেস ফিরে পেলেও ওয়েলিংটনের হয়ে চলতি মৌসুমে অবশ্য খুব ভালো ফর্মে নেই সিয়ার্স।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট টুর্নামেন্ট প্লাঙ্কেট শিল্ডে ৪ ম্যাচ খেলে তার শিকার ৯ উইকেট। লিস্ট ‘এ’ টুর্নামেন্ট দা ফোর্ড ট্রফিতে ৪ ম্যাচে নিয়েছেন ৩ উইকেট। সব মিলিয়ে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ২৯ ম্যাচ খেলে তার উইকেটে ৩৬টি। নিউ জিল্যান্ডের ওয়ানডে স্কোয়াডে অবশ্য আগেও দুই দফায় ছিলেন তিনি। তবে খেলার সুযোগ পাননি। ওয়ানডে না খেললেও দেশের হয়ে টি-টোয়েন্টি খেলেছেন সিয়ার্স। ২০২১ সালে বাংলাদেশ সফরেই তার অভিষেক। সেবার দুটি ম্যাচ খেলেছিলেন। পরে গত বছর আরও দুটি ম্যাচ খেলেছেন স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে, দুটি নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে। ৬ ম্যাচে তার প্রাপ্তি ওভারপ্রতি ৭.১৫ রান দিয়ে ৬ উইকেট। তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে রোববার ডানেডিনে বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে নিউ জিল্যান্ড।