নাটোরে পৃথক স্থানে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ২

76

indexনাটোর রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে গোপাল চন্দ্র সাহা (৪৮) নামে এক স্কুল শিক্ষক আত্মহত্যা করেছেন। এ ছাড়া জেলার নলডাঙ্গা উপজেলায় ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবকের (৩৬) মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে নাটোর রেলওয়ে স্টেশন প্লাটফর্মে এবং গত বুধবার দিনগত রাতে নলডাঙ্গা উপজেলার মহিষমারি ব্রিজের দক্ষিণে বিলের মধ্যে এই দুইটি দুর্ঘটনা ঘটে। আত্মহত্যাকারী গোপাল চন্দ্রের বাড়ি জেলা শহরের মল্লিকঘাঁটি মহল্লায়। তিনি সিংড়ার দমদমা সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। তিনি ক্যান্সারে ভুগছিলেন বলে জানা গেছে। নাটোর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার জমসেদ আলী প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে জানান, গোপাল চন্দ্র স্টেশনের দুই নম্বর প্লাটফর্মে বসেছিলেন। সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে রাজশাহীগামী উত্তরা এক্সপ্রেস ট্রেন ছাড়লে তিনি দৌড়ে ওই ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দেন। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। বিষয়টি রেলওয়ে সান্তাহার জিআর থানা পুলিশকে খবর দেওয়া হয়েছে। অপরদিকে, নলডাঙ্গা রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার দেবরত কুমার জানান, গত বুধবার দিবাগত রাতের কোনো একসময় মাধনগর-নলডাঙ্গার মাঝখানে মহিষমারি ব্রিজের দক্ষিণ পাশে ট্রেনে কাঁটা পড়ে অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। বিষয়টি রেলওয়ে সান্তাহার জিআর থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
মাইক্রোবাস চাপায় বৃদ্ধ নিহত: নাটোরের লালপুর উপজেলার কদিমচিলান এলাকায় মাইক্রোবাসের চাপায় বাহাদুর আলী খান (৭৬) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার সময় নাটোর-পাবনা মহাসড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত বাহাদুর আলী খানের বাড়ি লালপুর উপজেলার ভূঁইয়াপাড়ায়। লালপুর থানার ওসি আবু ওবায়েদ জানান, সকালে কদিমচিলান এলাকায় রাস্তা পার হচ্ছিলেন বাহাদুর। এ সময় পাবনা থেকে নাটোরগামী একটি মাইক্রোবাস তাকে চাপা দিলে তিনি গুরুতর আহত হন। এ অবস্থায় স্থানীয় লোকজন ওই তাকে উদ্ধার করে বনপাড়া ক্লিনিকে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।