নওগাঁয় ট্রাকের চাপায় শিক্ষকসহ নিহত ৫

7

নওগাঁ জেলায় ট্রাকের চাপায় শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শিক্ষকসহ ৫ জন নিহত হয়েছেন। নওগাঁ-রাজশাহী মহাসড়কে সদর উপজেলার বলিহার বাবলাতলী নামক স্থানে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের সাথে যাত্রীবোঝাই সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
ঘটনাস্থলে নিহতরা হচ্ছেনÑ নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলার ভাদুরন্দ গ্রামের ওমর আলীর কন্যা প্রাথমিক স্কুল শিক্ষক জান্নাতুন (৩৮), রামপুরা গ্রামের শিক্ষক মকবুল হোসেন (৬০), শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন (৪৭), সিএনজিচালক ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের সেলিম (৪৫) এবং গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার লেলিন (৩৫)। এ ঘটনায় আহত প্রাথমিক স্কুল শিক্ষক নুর জাহান (৩২)কে নওগাঁ সদর হাসপতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
পারিবারিকভাবে জানা গেছে, নিহত জানাতুন, মকবুল হোসেন ও দেলোয়ার হোসেন এবং আহত নুরজাহান সবাই শিক্ষক। তারা প্রশিক্ষণে অংশ নেয়ার জন্য নিয়ামতপুর থেকে নওগাঁ আসছিলেন।
প্রত্যক্ষদর্শী এবং ভীমপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের কর্মকর্তা জামাল হোসেন জানিয়েছেন, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ঘটনাস্থলে নওগাঁর দিক থেকে মাছের খাবার বোঝাই একটি ট্রাক রাজশাহীর দিকে এবং যাত্রী বোঝাই সিএনজি নওগাঁর দিকে আসছিল। হঠাৎ করে বলিহার সংযোগ সড়ক থেকে একটি মাটি বোঝাই ট্রাক্টর মেইন রাস্তায় উঠে। এ সময় ট্রাক্টরকে সাইড দিতে গিয়ে ট্রাক এবং সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ বাধে। এতে ট্রাক ও যাত্রীবোঝাই সিএনজি পাশের গভীর জলাশয়ে পড়ে যায় এবং সিএনজিটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে ৫ জন প্রাণ হারায়।
উদ্ধারকাজে অংশগ্রহণকারী নওগাঁর ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মাহমুুদুল হাসান জানিয়েছেন, সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করেন। ট্রাকের চাপায় সিএনজি দুমড়ে-মুচড়ে গিয়ে পানির নিচে ডুবে ছিল। সিএনজির বিভিন্ন অংশ পৃথকভাবে কেটে ভেতর থেকে একটি একটি করে লাশ বের করতে হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উদ্ধার কার্যক্রম চলছিল।