দুর্নীতির অভিযোগের মুখে সিঙ্গাপুরে মন্ত্রীর পদত্যাগ

1

সিঙ্গাপুরের পরিবহনমন্ত্রী এস. ইশ্বরানের বিরুদ্ধে একটি দুর্নীতিবিরোধী তদন্তে ২৭টি অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে। দেশটির দুর্নীতিবিরোধী সংস্থা বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানিয়েছে। কয়েক দশকের মধ্যে দেশটিতে কোনো মন্ত্রীকে জড়িত হাইপ্রফাইল মামলাগুলোর মধ্যে এটি একটি। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে বৃহস্পতিবার প্রকাশিত মঙ্গলবারের একটি পদত্যাগপত্রে ঈশ্বরান বলেছেন, তিনি এসব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করছেন এবং এখন তিনি তাঁর নাম পরিষ্কার করার দিকে মনোনিবেশ করবেন।

করাপ্ট প্র্যাকটিস ইনভেস্টিগেশন ব্যুরো (সিপিআইবি) বলেছে, ইশ্বরানকে গত বছরের জুলাই মাসে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি সম্পত্তি টাইকুন ওং বেং সেংয়ের কাছ থেকে তিন লাখ ৮৪ হাজার ৩৪০.৯৮ সিঙ্গাপুর ডলার (দুই লাখ ৮৬ হাজার ১৮১ মার্কিন ডলার) মূল্যের সুবিধা পেয়েছেনদ। ওংয়ের ব্যবসায়িক স্বার্থকে এগিয়ে নিতে তাঁদের মধ্যে এ লেনদেন হয়েছে। সিপিআইবি এক বিবৃতিতে বলেছে, ইশ্বরানের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, ন্যায়বিচারের পথে বাধাসহ মোট ২৭টি অভিযোগ রয়েছে। দুর্নীতির দায়ে দোষী সাব্যস্ত হলে তাঁর এক লাখ সিঙ্গাপুর ডলার পর্যন্ত জরিমানা বা সাত বছরের জেলের সাজা হতে পারে।

ওংয়ের অফিস থেকে মন্তব্য চাওয়া ই-ইমেলের কোনো তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। দুর্নীতির তদন্তের অংশ হিসেবে জুলাই মাসে এ সম্পত্তি টাইকুনকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তবে তাঁকে অভিযুক্ত করা হয়নি। এদিকে মামলাটি সিঙ্গাপুরকে নাড়া দিয়েছে। এশিয়ার প্রধান এ আর্থিককেন্দ্র একটি ছিমছাম পরিচ্ছন্ন সরকার নিয়ে গর্ব করে।

দেশটিতে রাজনৈতিক নেতাদের জড়িত দুর্নীতি এবং কেলেঙ্কারির কথা খুব কমই শোনা যায়। দুর্নীতিকে নিরুৎসাহিত করার জন্য দেশটির সরকারি কর্মচারীদের উচ্চ বেতন দেওয়া হয়। অনেক ক্যাবিনেট মন্ত্রীদের বার্ষিক বেতন এক মিলিয়ন সিঙ্গাপুর ডলারের বেশি। ২০২২ সালে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল ১৮০টি দেশের আন্তর্জাতিক দুর্নীতি উপলব্ধি সূচকে সিঙ্গাপুরকে পঞ্চম সর্বনিম্ন দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ হিসেবে স্থান দিয়েছে। সূত্র : রয়টার্স