দৈনিক গৌড় বাংলা

মঙ্গলবার, ২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

দক্ষিণ কোরিয়াকে হারিয়ে বাংলাদেশের টুর্নামেন্ট শুরু

মিরপুরে শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে এলাকার রাজনৈতিক কর্মীদের ভিড়। স্কুল শিক্ষার্থীরাও বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কাবাডি টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী দিনে হাজির। নিজেদের আয়োজনে এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ছিল বিশ্বকাপ কাবাডির সেমিফাইনাল খেলা দক্ষিণ কোরিয়া। বাংলাদেশের খেলোয়াড় রাসেল, মিজান, ইয়াসিন আরাফাত, জিয়াউর রহমান জিয়া, আরদুজ্জামান, আল আমিন, রাসেল, রোমানদের ধারণা ছিল দক্ষিণ কোরিয়া যতই শক্তিশালী হোক, লড়াইটা মাঝপথে থেকে না যায়। নিজেদের সামর্থ্যরে মধ্যেই খেলতে হবে। ম্যাটে নেমে ঘটেছে উলটো। বড় ব্যবধানে হেরেছে দক্ষিণ কোরিয়া। বাংলাদেশ ৬৭-২২ পয়েন্টে হারিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়াকে। বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের ভাবনায় ছিল জেতা কঠিন হলেও অসম্ভব কিছু না। কিন্তু কাল যেন ম্যাটে নেমে বাংলাদেশের দিকে ধেয়ে আসা রেমাল ঝড় দেখল দক্ষিণ কোরিয়া। এই টুর্নামেন্টের গত তিন আসরের চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। এবার চতুর্থ টুর্নামেন্টেও তাদের টার্গেট চ্যাম্পিয়ন হওয়া। আগের আসরগুলোতে দক্ষিণ কোরিয়া আসেনি, ছিল না জাপান। এই দুই দেশ ২০১২ এবং ২০১৬ বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে খেলেছিল। তারা এবার বাংলাদেশের টুর্নামেন্টে খেলছে। গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের সঙ্গী নেপাল, পোল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া। অন্য গ্রুপে ইরাক, থাইল্যান্ড, শ্রীলঙ্কা, কেনিয়া, উগান্ডা, জাপান খেলছে। মূলত দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপান এই টুর্নামেন্টের শক্তিশালী দল। কাল উদ্বোধনী লড়াইয়ে নামের শক্তিশালী দক্ষিণ কোরিয়াকে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। কত সহজেই জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। জানা গেছে, দক্ষিণ কোরিয়ার যে দলটি বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলেছিল সেই দলের নাকি ছয়-সাত জন আসেননি। তাছাড়া যারা এসেছেন তারা দুই দিনে এখানকার আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারেননি। প্রচ- গরম আর যেখানে খেলা হয়েছে সেখানে এসি থাকলেও গরম ছিল। দক্ষিণ কোরিয়া যেভাবেই দেখুক কাগজে-কলমে বাংলাদেশের জয়টাই লেখা থাকবে। পাঁচটি লোনাসহ ম্যাচ জেতে বাংলাদেশ। প্রথমার্ধে ২৪-১১ পয়েন্টে এগিয়ে ছিল। বাংলাদেশের তারকা রেইডার মিজানুর রহমান একাই ২১ পয়েন্ট এনে দেন। অধিনায়ক আরদুজ্জামান মুন্সি আনেন ১০ পয়েন্ট। ম্যাচে অসাধারণ নৈপুণ্যে দেখিয়ে সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পান মিজানুর। বাংলাদেশের কোচ আবদুল জলিল বলেন, ‘কোরিয়ার মতো শক্ত প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে ছেলেদের যেভাবে পরিকল্পনা দেওয়া হয়েছিল সেটা তারা ম্যাটে বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হয়েছে। গতকাল সোমবার মালয়েশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ, সেখানেও আশাকরি ছেলেরা জয় ছিনিয়ে আনবে।’ ম্যাচসেরা মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমরা প্রথম ম্যাচে কোরিয়ার বিরুদ্ধে বড় জয় পেয়েছি। এই ধারাবাহিকতা ধরে রেখে আমরা পুরো টুর্নামেন্টে খেলতে চাই। আমরা শিরোপা জিততে চাই।’

About The Author