তুরস্ক ও সৌদি আরবকে ধন্যবাদ যুক্তরাষ্ট্রের

5

ইউক্রেনের সঙ্গে রাশিয়ার বন্দি বিনিময়ে মধ্যস্থতা করায় তুরস্ক ও সৌদি আরবকে ধন্যবাদ জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্টের দপ্তর হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র কারিন জিন-পিয়েরে। এ সময় তিনি বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান তুলে ধরেন। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম ডেইলি সাবাহ। কারিন জিন-পিয়েরে বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যে বন্দি বিনিময়কে স্বাগত জানায়।’এই বন্দি বিনিময়ের আওতায় ইউক্রেন থেকে আটক হওয়া দুই মার্কিন নাগরিককেও মুক্তি দেওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে কারিন জিন-পিয়েরে বলেন, যেসব মার্কিন নাগরিক মুক্তি পেয়েছেন নিজেদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তাদের পুনরায় মিলিত হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে ওয়াশিংটন। মুক্তি পাওয়া দুই মার্কিন নাগরিক হলেন ৩৯ বছরের আলেকজান্ডার জন-রবার্ট ড্রুক এবং ২৭ বছরের অ্যান্ডি তাই এনগক হুইন। যুক্তরাষ্ট্রের আলাবামার বাসিন্দা এই দুই ব্যক্তি গত জুনে খারকিভে লড়াইয়ের সময় বন্দি হয়েছিলেন। ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যে যুদ্ধবিরতি সম্পন্ন হওয়ার পর গত শুক্রবার তারা নিজ দেশে পৌঁছান। যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে এটিই সবচেয়ে বড় আকারের বন্দি বিনিময়। আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, এর আওতায় রাশিয়া বিদেশি নাগরিকসহ ২১৫ জন ইউক্রেনীয় বন্দিকে মুক্তি দিয়েছে।

এর মধ্যে সামরিক বাহিনীর পাঁচ জন কমান্ডারও রয়েছেন। বিনিময়ে ৫৫ জন রুশ নাগরিক এবং মস্কোপন্থী ইউক্রেনীয় রাজনীতিক ভিক্টর মেদভেদচুককে মুক্তি দিয়েছে কিয়েভ। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান বলেন, এই বন্দি বিনিময়ের ঘটনায় আঙ্কারা সংলাপ ও কূটনীতির শক্তিতে বিশ্বাসের ফল পেয়েছে। রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যকার বিরোধ নিরসনের প্রচেষ্টা আরও জোরদার করতে জাতিসংঘের প্রতিও আহ্বান জানান তিনি।